শাজাহান আলি, মেদিনীপুর:  করোনাভাইরাস এবার ঢুকে পড়ল কোবরা ক্যাম্পেও। সংক্রমণ ধরা পড়েছে  বাহিনীর এক সিআরপিএফ জওয়ানে। কোভিড হাসপাতালে ভর্তি তিনি। তাঁর সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের সকলকেই কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। আতঙ্ক ছড়িয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরে শালবনিতে। 

আরও পড়ুন: পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

তখন ক্ষমতায় বামেরা। এ রাজ্যের জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের নাশকতায় জেরবার প্রশাসন। পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনিতে তখনকার মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের কনভয় লক্ষ্য করে ল্যান্ড মাইন বিস্ফোরণ ঘটানো হয়! সাঁকরাইল থানার ওসিকে অপহরণ করে মাওবাদী, পরে মুক্তি দেওয়া হয় শর্তসাপেক্ষে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশ, ইএফআর ও সিআরপিএফ থেকে বাছাই করা জওয়ানদের প্রশিক্ষণ দিয়ে কোবর বাহিনী তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।  ২০৭ নম্বর কোবরা বাহিনীর ক্যাম্প স্থায়ী ক্যাম্প তৈরি করা হয় শালবনিতে। সেই ক্যাম্পেরই এক জওয়ান করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: অপেক্ষার প্রহর শেষ, মরশুমে প্রথম ইলিশ উঠল দিঘায়

জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, আক্রান্ত কোবরা জওয়ানের শরীরে এখনও পর্যন্ত কোনও উপসর্গ দেখা যায়নি। আপাতত তিনি স্বাভাবিকই রয়েছেন। তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে করোনা হাসপাতালে। কিন্ত সংক্রমিত হলেন কী করে? পশ্চিম মেদিনীপুরের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক নিমাই চন্দ্র মণ্ডল জানিয়েছেন, ওই জওয়ান কোথাও গিয়েছিলেন কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  যাঁরা সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাঁদের সকলেই কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য,  দিন কয়েক আগে খোদ শালবনির করোনা  হাসপাতালে কর্মরত এক চিকিৎসক ও তিনজন নার্স সংক্রমণের শিকা হন। ফলে আতঙ্কের বেড়েছে আরও।