রোগীকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ দেওয়ার অভিযোগ মেদিনীপুরের এক বেসরকারি হাসপাতালকে দশ লক্ষ টাকা জরিমানা করল পশ্চিমবঙ্গ ক্লিনিক্যাল এস্টাবলিশমেন্ট রেগুলেটরি কমিশন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জরিমানার দশ লক্ষ টাকার মধ্যে পাঁচ লক্ষ টাকা দিতে হবে অভিযোগকারী রোগীকে আর বাকি পাঁচ লক্ষ  টাকা দিতে হবে রামকৃষ্ণ মিশনকে। রামকৃষ্ণ মিশন ঝাড়গ্রামের একলব্য বিদ্যাপীঠের উন্নয়নে ওই অর্থ ব্যয় করবে।

যদিও ক্লিনিক্যাল এস্টাবলিশমেন্ট কমিশনের এই রায়ে খুশি নন অভিযোগকারী সৌমেন্দু দে। মেদিনীপুর শহরের বিধাননগরে বাড়ি সৌমেন্দুবাবুর। তিনি জানান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি তিনি তাঁর ৭৬ বছর বয়সি বাবা প্রবোধ চন্দ্র দে- কে ভর্তি করেছিলেন মেদিনীপুর শহরেরই নামকরা একটি বেসরকারি হাসপাতালে। সৌমেন্দুবাবুর অভিযোগ, হাসপাতালে ভর্তির দু' দিন পর তিনি দেখেন যে একটি মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ তাঁর বাবার শরীরে প্রয়োগ করা হয়েছে। তিনি সঙ্গে সঙ্গে গোটা ঘটনার ভিডিও তুলে ও নথিপত্র সংগ্রহ করে জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের কাছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। 

আরও পড়ুন- স্কুলে সরস্বতী পুজো সংবিধান বিরোধী, বন্ধ করার আর্জি স্কুল পরিদর্শকের কাছে

আরও পড়ুন- সোনাই নদী থেকে উদ্ধার প্রচুর রুপোর গয়না, জমা পড়ল শুল্ক দফতরে

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সেই অভিযোগ এবং তথ্যপ্রমাণ পাঠিয়ে দেয় পশ্চিমবঙ্গ ক্লিনিক্যাল এস্টাবলিশমেন্ট রেগুলেটরি কমিশনে। এতদিন সেই তদন্ত চলছিল। শেষমেশ গত বৃহস্পতিবার ওই কমিশনের পক্ষ থেকে জরিমানার নির্দেশ জারি করা হয়েছে। তবে ভুল মেনে নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, কীভাবে এমন ভুল হলো তা খতিয়ে দেখছেন তাঁরা। তবে তা সম্পূর্ণ অনিচ্ছাকৃত বলেই দাবি হাসপাতালের কর্তাদের। তবে কমিশনের রায় মেনে নিয়ে নির্দেশমতো ক্ষতিপূরণের পুরো অর্থই মিটিয়ে দেওয়ার কথা জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।