সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর-রাজ্যে বিধানসভা ভোটের আবহে মন্ত্রিত্ব পদ ছেড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। তার আগে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন। এই অবস্থায় প্রথম সভা করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। কোনও রাজনৈতিক দলের ব্যানার ছাড়াই সভা করেন শুভেন্দু। পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলে অরাজনৈতিক সভা করেন শুভেন্দু। 

আরও পড়ুন-ভোটে তৃণমূলের তুরুফের তাস 'স্বাস্থ্যসাথী', বাংলার মন জয়ে জোর প্রচারে জেলা নেতৃত্ব

পূর্ব ঘোষিত সদ্য প্রয়াত স্বাধীনতা সংগ্রামী রণজিৎ বয়ালের স্মরণসভায় রবিবার হাজির হন শুভেন্দু অধিকারী। মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর এটাই ছিল তাঁর প্রথম জনসভা। শুভেন্দুর অরাজনৈতিক সভা হলেও জন সমাগম কম ছিল না। কমপক্ষে আট হাজার মানুষের সমাগম হয়েছিল মহিষাদল রাজবাড়ি চত্বরে। মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর দলত্যাগের জল্পনা ধোরাল হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। তাই সভায় উপস্থিত সকলে ভেবেছিলেন, সেকরমই কিছু বলবেন শুভেন্দু। কিন্তু, সেসব জল্পনা জিইয়ে রেখে স্বাধীনতা সংগ্রামে পূর্ব মেদিনীপুরের অবদান নিয়ে। সাধারণ মানুষকে জানালেন তাম্রলিপ্ত জাতীয় সরকার গঠনের কথা। স্বাভাবিকভাবেই শুভেন্দুর এই ধরনের বক্তৃত্বা কেউ সেখানে আশা করেননি।

আরও পড়ুন-উধাও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি, তৃণমূল কার্যালয়ে শুধু 'অভিভাবক' শুভেন্দু

শুধু তাই নয়, দলের বিরুদ্ধেও একটি কথা খরচ করেননি শুভেন্দু অধিকারী। অন্যদিকে, বিজেপিকে নিয়েও কিছু মন্তব্য করলেন তিনি। শুধু বললেন, সংবিধান মেনে মানুষের সেবা করব। সংবিধানের শক্তিতেই মানুষ শেষ কথা বলে। মহিষাদল রাজবাড়ির ছোলাবাড়িতে শুভেন্দু অধিকারীর সভার আয়োজন করা হয়েছিল। রবিবার  বেলা তিনটে নাগাদ সভা শুরুর কথা থাকলেও, শুভেন্দু সভাস্থলে পৌঁছান বিকেল চারটে নাগাদ।