বিশ্বানাথ দাস, হাওড়া-আগামী বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে চালচিত্র বদলাচ্ছে রাজ্য রাজনীতির। পথে নেমে প্রচার শুরু না হলেও রাজনৈতিক কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি অব্যাহত রয়েছে। নবান্ন দখলের লড়াইয়ে রাজ্যবাসীকে সোনার বাংলা গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে গেরুয়া শিবির। অন্যদিকে, রাজ্যের উন্নয়মূলক প্রকল্প গুলি নিয়ে জোরদার প্রচার শুরু করেছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। এই ভোটের আবহেই কিছু দিন আগে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পকে সম্প্রসারন ঘটিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। জোরকদমে চলছে তার প্রচার। এই অবস্থায় জেলা নেতৃত্বও এই প্রকল্পকে হাতিয়ার করে বাংলার মানুষের মন জয় করার চেষ্টা করছে।

আরও পড়ুন-উধাও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি, তৃণমূল কার্যালয়ে শুধু 'অভিভাবক' শুভেন্দু

রবিবার হাওড়া সদরে এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে জনসংযোগ বাড়াতে সাংবাদিক সম্মেলন করলেন সমবায়মন্ত্রী অরূপ রায়। তিনি জানান, সর্বজনীন হবে রাজ্যের স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প। রাজ্যের সব মানুষ বিনা খরচে পাবেন সরকারি স্বাস্থ্যবিমার সুযোগ। যদিও, গত বছর যাঁরা আবেদন করেছিলেন, তাঁদের বহু মানুষ এখনও কার্ড পাননি। এবিষয়ে সমবায়মন্ত্রী বলেন, সরকার এই বিষয় নিয়েও নির্দিষ্ট পলিসি তৈরি করবেন। পাশাপাশি, মন্ত্রী আরও জানান, বিধায়কদের তরফ থেকেও এই কার্ড নেওয়ার জন্য আবেদনপত্র পাওয়া যাবে। প্রয়োজনে মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হবে এই স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড।

আরও পড়ুন-'মায়ের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা-কেউ মানবে না', মমতার কথা মনে করিয়ে শুভেন্দুকে তোপ অভিষেকের

প্রসঙ্গত, পরিবারের সকলের জন্য স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প বলে আগেই ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। বর্তমানে এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত সাত কোটি উপভোক্তা রয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এই স্বাস্থ্যবিমার সম্প্রসারণ ঘটিয়ে করোনা আবহে সাধারণ মানুষের জন্য বিশেষ সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া দেশের অন্য কোনও রাজ্যে এই সুবিধা না থাকায় কেন্দ্রের আয়ূষমান প্রকল্পকে কটাক্ষ করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়। তাই বিধানসভা ভোটের আগে এই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পকেই হাতিয়ার করতে চাই শাসক দল ত়ৃণমূল কংগ্রেস।