হাতির হামলায় সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্যের মধ্যে পশ্চিম মেদিনীপুর। হাতির হামলায় মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণ দ্বিগুণেরও বেশি হয়ে গেলেও কৃষিতে ক্ষতিপূরণ যথার্থ নয় বলেই দাবি কৃষকদের। উল্টে ক্ষতির পরিমাণ চারগুণ বেড়ে গিয়েছে। ক্রমেই কোণঠাসা জঙ্গলমহলে কৃষকদের নিয়ে বৃহস্পতিবার বনদপ্তর এর মেদিনীপুর ডিভিশন অফিসে হাজির হল সারা ভারত কৃষক সভা।

আরও পড়ুন, গভীর রাতে গ্রামে হাতির হানা, ঘুমন্ত অবস্থায় অগ্নিদগ্ধ একই পরিবারের তিনজন

সংগঠনের পক্ষ থেকে সৌগত পন্ডা বলেন-" প্রাকৃতিক দুর্যোগের থেকে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে হাতির হামলায়। ব্যাপক পরিমাণে ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে কৃষকের। চাষে ক্ষয়ক্ষতির সঙ্গে কৃষকরা প্রানেও মারা যাচ্ছেন চাষের জমি বাঁচাতে গিয়ে। তাই বনদপ্তর এর কাছে আমরা জানাতে এসেছি-অবিলম্বে ক্ষতিগ্রস্ত চাষীদের জন্য একগুচ্ছ সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে। সেই সঙ্গে হাতির পালকে পুরোপুরি এলাকাছাড়া করতে হবে।"

আরও পড়ুন, পথ দুর্ঘটনা ঘিরে রণক্ষেত্র মালদহ, রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে দুই পড়ুয়া

ইতিমধ্যে বনদপ্তর এর পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ দ্বিগুণ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চাষে ক্ষতিই হোক, আর মৃত্যু-দুই ক্ষেত্রেই ক্ষতির পরিমাণ গত অর্থবছর তুলনায় দ্বিগুণ করে দেওয়া হয়েছে বলে বনদপ্তর এর একটি নোটিফিকেশন সম্প্রতি করা হয়েছে। কিন্তু কবে থেকে তা কার্যকরী হবে, চাষীদের সুবিধা পেতে জটিলতাই বা কবে কাটবে তা এখনো পরিষ্কার নয়।