ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে হামলার শিকার হলেন কয়েকজন বিজেপি কর্মী। তাঁদের উপর লাঠি, লোহার রড দিয়ে বেপরোয়া হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার জেরে উত্তেজনা ছড়াল এগরার এক নম্বর ব্লকের বরিদা গ্রামে। দুপক্ষের সংঘর্ষে এক জনের মৃত্যু হয়েছ। আহত হয়েছেন আরও কুড়ি জন। ওই ঘটনায় বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। 

আক্রান্তের পরিবারের লোকেরা জানান, এলাকার একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন ওই বিজেপি কর্মীরা। ঠিক সেই সময় তাঁদের উপর তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, ধর্মীয় অনুষ্ঠান চলাকালীন লাঠি, লোহার রড দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় বিজেপির কর্মী সমর্থকদের। হামলার জেরে শেখ লিয়াকত নামে বছর পঞ্চান্নর এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন, তাঁদের মধ্য়ে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এগরা থানার পুলিশ। আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে এগরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁদের মধ্য়ে দুজনের অবস্থার অবনতি হলে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজেও রেফার করা হয় আক্রান্তদের। 

যদিও, হামলার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে বিজেপি। তাঁদের পালটা দাবি, কবরস্থানে দলীয় অফিস তৈরি করা নিয়ে গণ্ডগোলের সূত্রপাত। এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই বলে জানিয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতারা।

এদিকে, সংঘর্ষের জেরে থমথমে রয়েছে গোটা এলাকা। গোটা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে এগরা থানার পুলিশ। হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ জন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।