শাজাহান আলি, মেদিনীপুর: করোনা আতঙ্কে পরিস্থিতি কার্যত হাতের বাইরে চলে গিয়েছে। রোজগার নেই, দিন কাটছে অনাহারে। এভাবে আর কতদিন! অভাবের তাড়নায় নিরুপায় হয়ে শেষপর্যন্ত আটমাসের কন্যাসন্তানকেই বিক্রি করে দিল এক দম্পতি। অবিশ্বাস্য ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুর শহর লাগোয়া হরিজনপল্লী এলাকায়।

আরও পড়ুন: খড়গপুরে রেলইয়ার্ডে দম্পতির দেহ উদ্ধার, আর্থিক অনটনের জেরে আত্মঘাতী বলে অনুমান

করোনা আতঙ্ক, লকডাউনে জেরে বেসামাল অর্থনীতি। কত মানুষকে যে কাজ হারিয়েছেন, তার ইয়ত্তা নেই। সংসার চালাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছিল মেদিনীপুরের কোতুয়ালি থানার এলাকা হরিজনপল্লীর বাসিন্দা এক দম্পতি। প্রথমে কয়েকমাস আধপেটা খেয়ে কাটিয়ে দিয়েছিল তারা। এরপর শুরু হয় অনাহারের পালা। তারপর? জানা গিয়েছে, পাশের পাড়ার এক পরিবারে নিজেদের কন্যাসন্তানকে মাত্র চার হাজার টাকা বিনিময়ে বিক্রি করে দেয় স্বামী-স্ত্রী।  কিন্তু সেই ঘটনার কথা আর গোপন থাকেনি। শিশু সুরক্ষা দপ্তর ও কোতুয়ালি থানার অভিযোগ দায়ের করেন শিশুটির কাকা। সেই অভিযোগে ভিত্তিতে এলাকায় অভিযান চালিয়ে আট মাসের মেয়েকে উদ্ধার করা হয়।

আরও পড়ুন: আনন্দপুর কাণ্ডে নয়া মোড়, যুবতীর বিরুদ্ধেই চার্জ গঠনের অনুমতি চাইল পুলিশ

বৃহস্পতিবার ভাইঝিকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনেন কাকা। তবে এবার আর তাকে দাদা-বউদির হাতে তুলে দেননি। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর শিশুটিকে মেদিনীপুর শহরের বিদ্যাসাগর  বালিকা ভবন হোমে রাখার ব্য়বস্থা করেছেন শিশু সুরক্ষা দপ্তরের আধিকারিকরা। এদিকে সন্তানকে বিক্রি করার অভিযোগে বাবা-মাকে আটক করেছে পুলিশ। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।  স্রেফ অভাব নাকি এর পিছনে অন্য়কোনও কারণ আছে, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।