শাজাহান আলি, পশ্চিম মেদিনীপুর-ফাঁকা রেলইয়ার্ডের মধ্যে দম্পতির দেহ উদ্ধার করল পুলিশ। শুক্রবার সকালে ফাঁকা জায়গায় দুটি দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মৃত দুই দম্পতি অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা। লকডাউনের সময় কাজ হারিয়ে বাড়িতে বসেছিলেন তাঁরা। আর্থিক অনটনের কারনে বিষ খেয়ে আত্মঘাতী বলে দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের।

আরও পড়ুন-বিজেপির নবান্ন অভিযানে বোমাবাজি, অভিযোগ জানাতে জোড়াসাঁকো থানায় তেজস্বী সূর্য

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে খড়গপুরের নিমপুরা এলাকায়। জানাগেছে, করোনাভাইরাসের আবহে লকডাউনের আগে অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা বছর বিয়াল্লিশের ভেঙ্কট রাও বিয়ে করেছিলেন নিমপুরার বাসিন্দা বছর বত্রিশের সীতালক্ষ্মীকে। শুক্রবার সকালে তাঁদের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর পেয়ে খড়গপুর থানার পুলিশ পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

আরও পড়ুন-নাশকতা নয়, প্রাক্তন মাওবাদী তকমা দিয়ে চাকরির দাবিতে সরব জঙ্গলমহল
 
স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ওই দম্পতি ভেবেছিলেন লকডাউন ওঠার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। পুনরায় নতুন জীবন শুরু করবেন বলে ঠিক করেছিলেন। কিন্তু ভেঙ্কটের কাছে দীর্ঘদিন কাজ না থাকায় আর্থিক সমস্যার মধ্যে পড়েন তাঁরা। সেকারণে অবসাদে বিষ খেয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। যদিও, খড়গপুর টাউন থানার পুলিশের প্রাথমিক অনুমান আর্থিক অনটনের জেরে আত্মঘাতী হয়েছেন ওই দম্পতি।