পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দ্বিতীয় পর্বের জব ফেয়ার উদ্বোধন হল শনিবার। জেলার বেকার যুবক যুবতীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিতে শিল্পোদ্যোগীদের ও বেকার যুবক যুবতীদের এক ছাতার তলায় এনে কর্মসংস্থানের জন্য সেতুবন্ধনের কাজ করছে জেলা প্রশাসন। শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই জব ফেয়ার এর উদ্বোধন করেন জেলা শাসক রেশমি কমল। ছিলেন অন্যান্য আধিকারিক সহ জনপ্রতিনিধিরাও।

আরও পড়ুন, পুজো দেওয়া হল না কালীঘাটে, বেপরোয়া গাড়ির বলি দর্শনার্থী

সূত্রের খবর, গত পাঁচ মাস আগে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর শহরে জেলাশাসকের দপ্তরের সামনে একই রকম জব ফেয়ার এর আয়োজন করা হয়েছিল। পরীক্ষামূলকভাবে প্রথম এই আয়োজনে দেড়শ জনের মত বেকার যুবক যুবতী কর্মসংস্থান পেয়েছিলেন জেলায় ছড়িয়ে থাকা শিল্প-কলকারখানা ও ব্যবসায়ীদের কাছে। এবারও একই রকম আয়োজন। তবে পুরনো অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে বেশ কিছু নতুন পদ্ধতিগত কাজ বদলানো হয়েছে।

আরও পড়ুন, পিছু ছাড়ছে না আতঙ্ক, বউবাজার বিপর্যয় ঠেকাতে আগাম ব্য়বস্থা মেট্রোর

জানা গিয়েছে, এবারকার দুদিনের জব ফেয়ারে প্রায় দুই হাজার তিনশো জন কর্ম প্রার্থী আবেদন করেছেন।প্রতিটি প্রার্থী দুটোর বেশি পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন না। সেই হিসাবে মোট ৪৬০০ টি আবেদন গৃহীত হয়েছে। এই কর্মসংস্থান মেলায় মোট ১২ টি সংস্থার উদ্যোগপতিরা হাজির হয়েছেন। শনিবার ও রবিবার দুদিন ধরে ইন্টারভিউ নিয়ে রবিবার ফলাফল জানিয়ে যোগ্য প্রার্থীদের হাতে নিযুক্তি পত্র তুলে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন, সোনার দোকান দুঃসাহসিক ডাকাতি, বাধা দিতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ মালিক

জেলাশাসক রেশমি কমল এদিন বলেন,' জেলাতে পাঁচ হাজারের বেশি উদ্যোগপতি রয়েছে, প্রত্যেককেই আমরা বেকার যুবক যুবতীদের কর্মসংস্থানের দিকে নজর দিতে বলেছি।প্রত্যেকে একজন করেও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিলে জেলাতে অনেকেই কাজ পেয়ে যাবেন। বাইরের জেলা থেকেও অনেক বেকার যুবক-যুবতী ফোন করেছিলেন অংশ নেওয়ার জন্য। তাদের নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে কারণ এটা শুধু এই জেলার জন্যই। অন্যান্য কোম্পানীর আয়োজিত জব ফেয়ারের মত এই আয়োজন নয়। সেখানে শুধু আইওয়াশ হয়।আমরা এখানে প্রকৃত কর্মসংস্থানের জন্য সমস্ত রকমের ব্যবস্থা করেছি।'