মদ্যপ অবস্থায় স্নান করতে নেমে সাঁতার দেওয়ার চেষ্টা করছিল এক বাবা ৷ সঙ্গে নিজের নাবালক ছেলেকে সাঁতার শেখানোর চেষ্টা করছিলেন তিনি ৷ মোরাম খাদানের জলাশয়ের মাঝে গিয়ে সমস্যা দেখা দেয় ৷ কোনও ভাবে ডুবন্ত ছেলেকে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে নিলেও বাঁচানো যায়নি মদ্যপ বাবাকে ৷ বুধবার দিনভর খোঁজ করার পরে রাতে সিভিল ডিফেন্স এর টিম গিয়ে দেহ উদ্ধার করে ৷ 
 
ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশিয়াড়ী থানার অন্তর্গত মামদপুর গ্রামে ৷ পুলিশ জানিয়েছে, মৃত যুবকের নাম কালীচরণ মূর্ম্মূ। তাঁর বয়স বত্রিশ বছর। প্রত্যেকদিনের মতো বাড়ির কাছে মোরাম খাদানের  পুকুরে বুধবার দুপুর নাগাদ স্নান করতে নামে কালীচরণ।পরিবারের স্ত্রী ও অন্যান্যরাও ছিলেন ৷ স্নানে নামার সময় কালীচরণ মত্ত ছিলেন বলে দাবি পরিবারের ৷ এই অবস্থায় বারো বছরের ছেলেকে সাঁতার শেখানোর চেষ্টা করছিলেন তিনি৷ ছেলেকে নিয়ে এক পাড় থেকে অন্য পাড়ে যাওয়ার সময় মাঝ জলাশয়ে দম হারিয়ে ফেলেন কালীচরণ। ছেলে-কে নিয়ে গভীর জলে হাবুডুবু খেতে থাকেন তিনি। দুজনকেই ডুবতে দেখে পরিবারের অন্য সদস্যরা চিৎকার শুরু করেন। পাড়ে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যাক্তি সাঁতার কেটে এসে মাঝ জলাশয় থেকে কালীচরণের ছেলেকে উদ্ধার করে নেয়। কিন্তু কালীচরণকে উদ্ধার করা যায়নি। 
 
গ্রামবাসীরা পুকুরে নেমে দীর্ঘক্ষণ  খোঁজ চালালেও কালীচরণের খোঁজ পাননি। শেষমেশ পুলিশ ও প্রশাসনকে বিষয়টি জানানো হয়। বুধবার অনেক রাতে সিভিল ডিফেন্স-এর ডুবুরি এসে গভীর জল থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে।