সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর-পুকুর থেকে একটি পাথরের মূর্তি উদ্ধার হয়েছিল। আর তাকে ঘিরে তুলকালাম কাণ্ড ঘটে গেল এলাকায়। সেই মূর্তি টিকে পুজো করতে ভিড় করলেন সাত থেকে আটটি গ্রামের মানুষ। ফুল, ধূপ, ধুনো দিয়ে চলল পুজো। প্রণামীও পড়ল অনেক। এলাকার পুরোহিতের দাবি, এটি একটি অলৌকিক শক্তি।

আরও পড়ুন-পাওনা টাকা নিয়ে বচসার জের,ধারালো অস্ত্রের কোপে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে, পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে। এলাকার টুলা গ্রামের বাসিন্দা আনন্দমোহন সাহু পুকুরে কিছু ভাসতে দেখেন। জলে নেমে কাছে গিয়ে দেখেন সেটি একটি ঠাকুরের মূর্তি। তাঁর দাবি, পাথরের ওই মূর্তিটি নাকি এতটাই ভারী ছিল যে, তাঁর একার পক্ষে ডাঙায় তোলা সম্ভব হয়। পরে পরিবারের সকলে মিলে মূর্তিটিকে তুলে নিজের বাড়ির মন্দিরে রাখেন। 

আরও পড়ুন-বিশ্ব নবি দিবসের মিছিলে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয়ে প্রাণ হারালেন দু'জন

কোনও অলৌকিক শক্তির আর্বিভাব ঘটেছে বলে মূর্হূতের মধ্যে চারিদিকে গুজ রটে যায়। পাথরের মূর্তিটিকে পুজো করতে ভিড় করেন আশাপাশের গ্রামের মানুষ। পরে আরও পাঁচ থেকে ছটি গ্রামের বাসিন্দারাও ভিড় করেন মূর্তি পুজো করতে। ধূপ, ফুল ও প্রণামী দিয়ে চলতে থাকে পুজো। গ্রামবাসীরা ভিড় করে পুজো দিতে থাকেন। কিন্তু, তাঁদের বোঝানোর উপায় নেই পাথর জলে ভাসে না। মহামারি দূর করতেই এই অলৌকিক শক্তি প্রকট হয়েছে দাবি গ্রামবাসীদের।