শাজাহান আলি, মেদিনীপুর: মানুষই হোক কিংবা অবলা প্রাণী, পেট সত্যি বড় বালাই! খাবারের সন্ধানে বেরিয়ে এবার স্কুলের একশো ফুট উঁচু পাঁচিল ভেঙে দিল হাতি।  ঘটনায় আতঙ্ক ছড়াল পশ্চিম মেদিনীপুরের ঝরিয়া এলাকায়। 

আরও পড়ুন: সোনারপুরে পুলিশের জালে বাংলাদেশি জলদস্য়ু, গ্রেফতার আর ২

মেদিনীপুর শহর থেকে দূরত্ব বাইশ কিমি। মেদিনীপুর সদর ব্লকের ঝরিয়া এলাকাটি একেবারেই জঙ্গল লাগোয়া। এলাকায় হাতির আনাগোনা লেগেই থাকে। গ্রামে একই এলাকায় রয়েছে প্রাথমিক স্কুল ও উচ্চ বিদ্যালয়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার গভীর রাতে খাবার সন্ধানে এলাকায় হানা একটি হাতি। একশো উঁচু পাঁচিল ভেঙে হাতিটি ঢুকে পড়ে স্কুল চত্বরে। কিন্তু বিভিন্ন জায়গায় ঢুঁ মেরেও মিড-ডে মিলের চালেরও সন্ধান পায়নি সে। এরপর স্কুল লাগোয়া কয়েকটি দোকান, এমনকী বাড়ির সামনেও চলে তাণ্ডব। শেষপর্যন্ত জঙ্গলে ফিরে যায় হাতিটি। ঘটনার রীতিমতো আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা। 

আরও পড়ুন: খিদের জ্বালায় বেঘোরে মৃত্যু, ডুয়ার্সের চা বাগানে ফের বিদ্যুৎপৃষ্ট পূর্ণবয়ষ্ক হাতি

উল্লেখ্য, মেদিনীপুর ও লাগোয়া ঝাড়গ্রাম জেলার জঙ্গলে হাতির অভাব নেই। তার উপর অন্য এলাকা বিশেষ করে দলমার হাতিরাও ঢুকে পড়ে জঙ্গলে। কিন্তু ঘটনা হল ইদানিং খাবারে সন্ধানে লোকালয়ে হাতির আনাগোনা বাড়ছে। বন দপ্তরের মেদিনীপুর ডিভিশনের ডিএফও সন্দীপ বেডৃওয়াল জানিয়েছেন,  হাতিদের খাদ্য়াভ্যাস বদলে গিয়েছে নানা কারণে। তাই বারবার লোকালয়ে ঢুকে পড়ছে তারা। হাতির তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।