পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা জুড়ে হাতির তাণ্ডব অব্যাহত। আর সেই হাতি তাড়াতে গিয়ে চাষীদের হাতে প্রহৃত হলেন হুলা পার্টির সদস্যরা। ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা টাউন থানার অন্তর্গত গোপীনাথপুর এলাকায়। প্রহৃত হুলা পার্টির সদস্যদেরকে এখন ভর্তি করা হয়েছে  চন্দ্রকোনা গ্রামীণ হাসপাতালে। 

ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা টাউন থানার অন্তর্গত গোপীনাথপুর এলাকায়।বনদপ্তর এর শত চেষ্টা সত্ত্বেও হাতিগুলোকে এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে নিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। স্থায়ী সমাধান হিসেবে হাতিগুলোকে পাকাপাকি জেলা ছাড়া করতে পারছে না বনদপ্তর। ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুব্ধ চাষীদের রোষে এবার হাতি তাড়ানোর হুলা পার্টির সদস্যরা। হাতি তাড়ানোর সময় জমিতে হাতে নেমে যাওয়ার অপরাধে দুই সদস্যকে বেধড়ক পেটালেন কৃষকেরা।
 

আরও পড়ুন, শালবনীর জঙ্গলে প্রৌঢ়াকে 'ধর্ষণ' করে 'খুন', আটক ৫

গোপীনাথপুরএলাকার ধামকুরিয়া বিটের ঘাটমুড়া জঙ্গল সংলগ্ন এলাকায় ১২টির বেশি হাতি রয়েছে এক সপ্তাহ ধরে। প্রতিদিনই বিকেলের পর বিভিন্নভাবে কৃষকদের চাষের ক্ষতিকর ছিল হাতির পাল। তাই বনদপ্তর এর উদ্যোগে হুলা পার্টির সদস্যরা শনিবার রাতে হাতিগুলোকে তাড়ানোর কাজে নেমে ছিলেন। হাতি ড্রাইভ করার সময় বেশকিছু হাতি স্থানীয় গোপীনাথপুর এলাকার চাষের জমিতে নেমে পড়েছিল।রোয়া ধান থেকে শুরু করে আলুর জমিতে ক্ষতি হচ্ছে দেখেই ক্ষুব্দ চাষিরা আক্রমণ করে হুলা পার্টির সদস্যদের উপরে। হাতের সামনে পেয়ে দুই হুলাপার্টির সদস্যকে বেধড়ক মারধর করা হয়। লাঠিসোঁটার ঘায়ে প্রশান্ত ঘোষ ও বাদল কিস্কু নামে দুই যুবক গুরুতর জখম হন। রাতেই তাদের ভর্তি করা হয় চন্দ্রকোনা গ্রামীণ হাসপাতালে।

আরও পড়ুন, দড়ি বেঁধে টানা হলো মহিলাকে, নির্মম অত্যাচারে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা

 গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এমনিতেই হাতির পালের দ্বারা চাষের প্রচন্ড ক্ষতি হয়েছে। দিন রাত জেগে তারা চাষের জমি বাঁচানোর চেষ্টা করছে। ফের হুলা পার্টিদের কারণে চাষের ক্ষতি হলে কিভাবে বাঁচবে, জানিয়েছেন গ্রামবাসী। অন্যদিকে হাতির হানাতে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে চন্দ্রকোনা ২ ব্লকের অন্তর্গত সিতানগর ও নীলগঞ্জ গ্রামে। বহু আলুর জমি লন্ডভন্ড করে দিয়েছে হাতির পাল। এই ঘটনায় বনদপ্তরের ওপর কৃষকেরা ক্ষোভ উগরে দিয়েছে।