গত রবিবার জাপান থেকে বাড়ি ফিরেছিলেন যুবক। বাড়িতে ফিরেই পরদিন থেকেই পেটের সমস্যা ও জ্বর। কয়েকদিন ওষুধ খেয়ে সমাধানের চেষ্টা করেও বিফল হওয়াতে নিজেই মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজে হাজির হলেন যুবক।স্বাস্থ্য দফতরের চিকিৎসকরা নমুনা সংগ্রহ করে পাঠালেন অবজারভেশনে। নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে না আসা পর্যন্ত নিজের বাড়িতেই থাকবেন নির্দিষ্ট নিয়মে৷ 

ওই যুবকের বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতাতে। গত রবিবার জাপান থেকে তিনি বাড়িতে ফিরেছিলেন। বাড়িতে ফিরেই সোমবার থেকে পেটের নানান সমস্যা ও জ্বরে ভুগতে থাকেন। প্রাথমিক চিকিৎসা করার চেষ্টা করেও সুবিধে না হওয়াতে সন্দেহ করে নিজেই শুক্রবার হাজির হয়ে যান মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। হাসপাতালের আউটডোর এই সমস্যার কথা জানিয়ে জাপান থেকে ফেরার কথা বলতেই সজাগ হয়ে যান চিকিৎসকরা। দ্রুত তাকে পাঠানো হয় হাসপাতালে নতুন করে তৈরি আইসোলেশন ওয়ার্ডে। এই কাজের জন্য নিযুক্ত চিকিৎসক ও টিম দ্রুত তৎপর হয়ে যায়। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়, এরপর সমস্ত কিছু বুঝিয়ে বাড়ি ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাক্তার গিরিশচন্দ্র বেরা বলেন," পেটের সামান্য কিছু সমস্যা ছিল, আমরা নমুনা সংগ্রহ করে পাঠিয়েছি। তেমন কিছু নয় বলেই মনে হলো তবু নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এলে নিশ্চিত হওয়া যাবে।" আপাতত ওই যুবককে অবজারভেশনে রাখছে স্বাস্থ্য দপ্তর। নিজের বাড়িতেই তিনি আলাদাভাবে থাকবেন বলে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে।