শাজাহান আলি, মেদিনীপুর:  আতঙ্ক আর কতক্ষণের! সাতসকালে হাতির সঙ্গে সেলফি তোলার জন্য ভিড় জমে গেল এলাকায়। শেষপর্যন্ত গ্রামবাসীরা তাড়া করে হাতিটি পাঠিয়ে দিলেন জঙ্গলে। ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুর সদর ব্লকের দেউলডাঙা গ্রামে।

আরও পড়ুন: বিজেপি কর্মীর পথ আটকে মারধর, হুমকি, কাঁচড়াপাড়ায় কাঠগড়ায় শাসকদল

মেদিনীপুর কিংবা লাগোয়া জেলা ঝাড়গ্রামের জঙ্গলের হাতির অভাব নেই। তার উপর অন্য এলাকা বিশেষ করে দলমা হাতির দলও ঢুকে পড়ে জঙ্গলে। কিন্তু খাবার কই! ইদানিং পেটে জ্বালায় লোকালয়ে হাতিদের আনাগোনা বেড়েছে। হাতির হানায় প্রাণহানির ঘটছে, বরাতজোরে আবার প্রাণে বেঁচে যাচ্ছেন কেউ কেউ। 

জানা গিয়েছে, মেদিনীপুর সদর ব্লকের চাঁদড়ার জঙ্গলে দীর্ঘদিন ধরেই রয়েছে বেশ কয়েকটি হাতি। সোমবার সাতসকালে একটি হাত জঙ্গল থেকে বেরিয়ে ঢুকে পড়ে স্থানীয় দেউলডাঙা গ্রামে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হাতিটি কারও কোনও করেনি, বরং নিজের খেয়ালে ইতিউতি ঘুরে বেড়াচ্ছিল। ঘটনাটি নজরে পড়তেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গ্রামে। আতঙ্ক এতটাই যে, রীতিমতো ছোটাছুটি করতে শুরু করেন সকলেই। এরপর গ্রামবাসীরা  ঐক্যবদ্ধ হয়ে যখন হাতিটি জঙ্গলের পথে ফেরানো চেষ্টা করছেন, ততক্ষণে সেলফি তোলার জন্য ভিড় জমে গিয়েছে অতি উৎসাহীদের। প্রায় আধঘণ্টা এলাকা ছেড়ে চলে যায় হাতিটি।

আরও পড়ুন: বাসে থাকলেও ট্যাক্সিতে নেই স্যানিটাইজেশনের কোনও ব্যবস্থাই, এক নজরে দেখেনিন কি মত ট্যাক্সি চালকদের

উল্লেখ্য, দিন দুই আগে পশ্চিম মেদিনীপুরেরই ধেডুয়া এলাকায় সাতসকালে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে বিপদে পড়েছিলেন এক বৃদ্ধ। হাতির হামলায় গুরুতর জখম হন তিনি। স্থানীয় সুন্দরলাটা গ্রামে মারাও গিয়েছেন একজন।