বার্ড ফু্লু আতহ্কের জেরে সীমান্তে শুরু কড়া নজরদারি। প্রতিবেশী রাজ্য ওড়িশায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়েছে বার্ডফ্লু। ক্রমেই সেই ভাইরাস ছড়াতে শুরু করেছে ওড়িশা সংলঘ্ন এলাকাগুলিতে। পশ্চিমবঙ্গকে এই ভাইরাসের থাবা থেকে বাঁচাতে সীমান্তে গাড়ি ঢুকলেই ওষুধ ছড়াচ্ছে রাজ্য সরকার। রীতিমতো বিশেষ পোশাক পরে ওষুধ স্প্রে করা হচ্ছে। যা দেখে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক গ্রাস করেছে সীমান্ত লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দাদের। যদিও এর সঙ্গে করোনার কোনও সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছে প্রশাসন।

শুক্রবার থেকে এই চিত্র দেখা দিয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের সীমান্ত এলাকা দাঁতন থানার অন্তর্গত ঘোলাইয়ে। ওই এলাকার ওপর দিয়ে ওড়িশা থেকে ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক হয়ে এ রাজ্যে প্রবেশ করছে গাড়িগুলি। সেখানেই জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে  প্রতিটি গাড়ি ঢুকলেই পুলিশ দিয়ে দাঁড় করিয়ে ওষুধ স্প্রে করা হচ্ছে। প্রাণিসম্পদ দফতরের কর্মীরা নিজেদের রীতিমতো বর্মে ঢেকে প্রবেশ রাস্তার স্থানটিকে ওষুধ স্প্রে করে আগে জীবাণুমুক্ত করে নিচ্ছেন। এরপর গাড়িগুলিকে স্প্রে করে জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে।

এই কাজের দায়িত্বে থাকা ডাক্তার রবিন বন্দ্য়োপাধ্যায় বলেন," এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। প্রতিবেশী রাজ্যে বার্ড ফ্লু ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস ছড়িয়েছে বলেই এই উদ্যোগ নিতে হয়েছে। ওড়িশার সহ ওই রাজ্যের উপর দিয়ে আসা অন্যান্য রাজ্যের গাড়িগুলো জীবাণুমুক্ত করতেই এই প্রতিরোধী ব্য়বস্থা গর্হণ করা হয়েছে। এই রাজ্যে "

এদিকে জাতীয় সড়কের উপর প্রশাসনিক এই ধরনের কর্মকাণ্ড দেখে অনেকেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। থাঁদের ধারণা, করোনা ভাইরাসের জন্যই এই স্প্রে করা হচ্ছে। বিষয়টি উপলব্ধি করে ইতিমধ্য়েই স্থানীয়দের আশ্বস্ত করার কাজ শুরু করেছে প্রশাসন।