শাজাহান আলি, পশ্চিম মেদিনীপুর-সদ্য মন্ত্রিত্ব ছেড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এবার তাঁরই পথ অনুসরণ করলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান এক নেতা। পরপর দুটি সরকারি পদ থেকে ইস্তফা দিলেন। ছেড়ে দিলেন সরকারি গাড়িও। ঘটনার জেরে স্বাভাবিক ভাবেই অস্বস্তিতে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। নজিরবিহীন এই ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরে।

আরও পড়ুন-ফের প্রকাশ্য়ে দিলীপ-সৌমিত্র দ্বন্দ্ব, যুব মোর্চার পদাধিকারি বাছতে ধাক্কা খেলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার বর্ষিয়ান তৃণমূল নেতা প্রণব বসু। মেদিনীপুর পুরসভায় টানা দশ বছর পুরপ্রধান ছিলেন। পুরসভার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তিনি প্রশাসক হিসেবেও কাজ করছিলেন। কিন্তু তিনি শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ হওয়ায় তাঁকে প্রশাসক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। ঘটনায় তৃণমূলের ভূমিকার তীব্র সামলোচনা করেছিলেন তিনি। ঘটনায় অপমানিত বোধ করে প্রশাসনের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেছিলেন তিনি। বর্তমানে মেদিনীপুর জেলা পরিষদের মেন্টর পদে ছিলেন প্রণব বসু।

আরও পড়ুন-ষাটের কাছাকাছি বয়সেও অদম্য প্রাণশক্তি, করোনা সচেনতনায় পায়ে হেঁটে ভারত অভিযান দাসু দার

পুর প্রশাসকের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার পর দলীয় কোনও কর্মসূচিতে ডাকা হয়নি বলে দাবি করেছেন বর্ষিয়ান তৃণমূল নেতা। এরপরই, বাড়িতে কয়েকদিন থাকার পর মঙ্গলবার জেলা পরিষদের মেন্টর পদ থেকে ইস্তফা দেন তিনি। সূত্রের খবর, শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত এই তৃণমূল নেতা। সেকারণে তাঁরই পথ অনুসরন করে এদিন  জেলা পরিষদের মেন্টর পদ থেকে ইস্তফা দেন। শুধু তাই নয়, সরকারি গাড়িও ছেড়ে দিলেন প্রবীণ এই তৃণমূল নেতা।