করোনা সংক্রমিত নন তো? দিঘা যাওয়ার পথে ফ্রান্সের দু'জন পর্যটককে আটক করল রেল পুলিশ। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান তাঁরা। হাওড়ার উলুবেড়িয়ায়ও পর্যবেক্ষণের জন্য দু'জনকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে প্রশাসন। 

আরও পড়ুুন: করোনার আশঙ্কা প্রবল, জেনেও পালিয়ে বেড়াচ্ছেন যুবক

হু হু করে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। সর্দি-কাশির উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন অনেকেই। আগাম সতর্কতায় অনেকে আবার বাড়িতে আলাদা থাকছেন। কিন্তু সকলেই যে নিয়ম মানছেন, তা কিন্তু নয়। আর তাতেই বিপদ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্যে মহামারী প্রতিরোধী আইন লাগু করেছে সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন, যদি কেউ করোনা ভাইরাসের চিকিৎসা এড়িয়ে যান, তাহলে তাঁকে গ্রেফতার করা হবে। রোগ লুকিয়ে পালালে হাজতবাসও করতে হতে পারে অভিযুক্তকে।

জানা গিয়েছে,  করোনা আতঙ্কে মাঝেই সপ্তাহ খানেক আগে ভারতে আসেন ফ্রান্সের দু'জন নাগরিক। হাওড়া থেকে কান্ডারি এক্সপ্রেসে চেপে দিঘা যাচ্ছিলেন তাঁরা। যাত্রীদের পরিচয় জানার পর তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার উদ্যোগ নেয় রেল কর্তৃপক্ষ।  বুধবার সকালে ট্রেন যখন তমলুক স্টেশনে পৌঁছয়, তখন ওই দুই ফরাসি নাগরিককে আটক করে রেল পুলিশ। স্টেশন থেকে অ্যাম্বুল্যান্সে চাপিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। তবে বিদেশিদের শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া যায়নি। রুটিন স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর দু'জনকে ছেড়ে দেন চিকিৎসকরা। 

আরও পড়ুন: ডুয়ার্সে হাজির তিনজন জার্মান পর্যটক, করোনা আতঙ্কে খবর গেল থানায়

হাওড়ার উলুবেড়িয়া থেকে লন্ডনে আত্মীয় বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন দুই ব্যক্তি। কিন্তু ফিরে আসার পর আর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাননি, বাড়িতেই ছিলেন তাঁরা। বিষয়টি জানাজানি হতে তৎপর হয় প্রশাসন। বুধবার বিকেলে দু'জনকে ভর্তি করা হয়  উলুবেড়িয়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। আইসোলেশন ওয়ার্ড রেখে বাবা ও ছেলের শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন চিকিৎসকরা।