সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর-এবছরের মতো আগে দুর্গা পুজো আগে দেখেনি বাঙালি। চারিদিকে শুধু করোনার ভয় আর আতঙ্ক। এই মারণ ভাইরাসের কোপে থাবা পড়েছে বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসবে। তবুও কী বাধা পড়ে সেলিব্রেশনে। করোনার সংক্রমণ দূরে রাখতে একমাত্র অস্ত্র মুখে মাস্ক আর হাতে স্যানিটাইজার। তাই, মুখে মাস্ক পরেই সিঁদুর খেলায় মাতলেন বাঙালি বধূরা।

আরও পড়ুন-'আসছে বছর আবার হবে', বিজয়ার শুভেচ্ছা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পূর্ব মেদিনীপুর তমলুকের ইযুথ স্পোর্টিং ক্লাব। প্রতিবছর পুজো জাঁকজমক পূর্ণ হলেও, এবছর আনন্দে থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস। সোমবার বিজয়া দশমী। মা উমাকে বিদায়ের পালা। দশমী বিসর্জনের আগে যাবতীয় রীতি নীতি পালন করলেন পুজো উদ্যোক্তারা। করোনা সংক্রমণ রুখতে মুখে মাস্ক পরেই সিঁদুর খেলায় মাতলেন এলাকার মহিলারা। দশমীর সকালে মা দুর্গার আরতির পরই, কলাবউ ও     ঘটকে নীচে নামিয়ে বরণ করেন মহিলারা। তারপরই, মাস্ক পরে শুরু হয় সিঁদুর খেলা।

আরও পড়ুন-অষ্টমীর সন্ধীক্ষণে মল্ল রাজাদের হুঙ্কার, কামান দাগানোর শব্দে গর্জে উঠল বিষ্ণুপুর

এবছরের দুর্গা পুজোয় করোনা সংক্রমণ রোধে বিশেষ নির্দেশিকা দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। আদালতের রায়কে মান্যতা দিয়েই পুজোর যাবতীয় আয়োজন করেন উদ্যোক্তারা। সামাজিক দূরত্ব বিধি বজায় রেখে শুরু হয় বিসর্জনের প্রস্তুতি। ক্লাবের সদস্য ও এলাকার মহিলারা সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠেন। একে ওপরের গালে সিঁদুর লাগিয়ে বিষাদের সুরে মা দুর্গাকে বিদায় দেন তমলুকবাসী।