মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গি উপস্থিতি নিয়ে বোমা ফাটালেন ইমরান খান। মঙ্গলবার তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন, এর আগে বিশেষ করে গত ১৫ বছর ধরে পাক সরকার সেই দেশে জঙ্গি উপস্থিতি নিয়ে আমেরিকাকে ক্রমাগত মিথ্যে বলে গিয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ৯/১১ হামলাতে পাকিস্তানের কোনও ভূমিকা না থাকলেও সন্ত্রাসবাদেরর বিরুদ্ধে আমেরিকার যুদ্ধে তাঁরা সামিল হয়েছিলেন। সেই সময়ে কোনও তালিবানি জঙ্গি পাকভূমে ছিল না। পরে যখন পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদীরা ঘাঁটি গড়তে শুরু করে, তখন সেইসময়ের পাক সরকার আমেরিকাকে তা জানায়নি।

তিনি আরও জানিয়েছেন সেই সময় অন্তত ৪০টি বিভিন্ন জঙ্গিগোষ্ঠী পাকিস্তানে সক্রিয় হয়েছিল। ফলে সেই সময়ে পাকিস্তান নিজের অস্তিত্ব বিপন্ন ছিল। আর তার মধ্য়েই আমেরিকার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইতে সামিল হতে হয়েছিল।

তিনি আরও জানিয়েছেন, তাঁণর দল ক্ষমতায় আসার আগে প্রকিস্তানের কোনও সরকারই সন্ত্রাসবাদ খতম করার রাজনৈতিক সদিচ্ছা ছিল না। ফলে এখনও তাঁর দেশে ৩০ থেকে ৪০ হাজার জঙ্গি রয়েছে বলেও জানান তিনি। তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে আফগানিস্তান ও কাশ্মীরে যুদ্ধ করার জন্য।

তাঁর দাবি পুলওয়ামার ঘটনা ঘটার আগে থেকেই পাকিস্তানকে পুরোপুরি জঙ্গিমুক্ত করার শপথ নিয়েছিলেন তাঁকরা। পাকিস্তানের সব রাজনৈতচিক দলই নাকি তাতে সম্মত হয়েছিল। কিন্তু তারমধ্যে জইশ-ই-মহম্মদ ওই কাণ্ড ঘটায়। ফলে বিশ্বের সামনে পাকিস্তান ফের ভিলেন হয়ে যায়। আন্তর্জাতিক চাপ বাড়তে থাকে। তিনি জানিয়েছেন, পাকিস্তান তার নিজের স্বার্থেই দেশের মাটি থেকে জঙ্গিবাদকে নিকেষ করতে চায়।