আগামী সেপ্টেম্বরেই পাক অধিকৃত গিলগিল বাল্টিস্তানে সাধারণ নির্বাচনের নির্দেশ দিয়েছে পাক সুপ্রিম কোর্ট। পাশাপাশি পাকিস্তানের শীর্ষ আদালত জানিয়েছে যতদিন পর্যন্ত এই এলাকায় নির্বাচন না হবে ততদিন পর্যন্ত অন্তবর্তীকালীন সরকার এই এলাকায় শাসনভার পরিচালনা করবে। পাক সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করছে ভারত। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, গিলগিট বাল্টিস্তান ভারতের অংশ। সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে এই এলাকার চরিত্র বদলের চেষ্টা করছে ইমরানের সরকার। 

পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের আর্জি মেনেই সেদেশের সুপ্রিম কোর্ট গিলগিট বাল্টিস্তান সংক্রান্ত ২০১৮ সালের আইনের অবাসন ঘটিয়ে সেখানে নির্বাচন করানোর নির্দেশ দিয়েছে। ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে এইটি বিবৃতি জারি করে জানান হয়েছে, জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখের যে বিস্তীর্ণ এলাকা পাকিস্তান দখল করে রেখেছে তার কোনও রকম পরিবর্তন বরদাস্ত করা হবে না। গিলগিট বিল্টিস্তান ভারতেই অংশ।  অবিলম্বে এই এলাকা খালি করে দিতে হবে বলেও দাবি করেছে ভারত।ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ওই এলাকায় পাকিস্তানের কোনও রকম আইনি পদক্ষেপ গ্রহণও বরদাস্ত করা হবে না বলে জানান হয়েছে।   গিলগিট বাল্টিস্তানের সাধারণ মানুষের মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ ভারতের। 


বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তানের কূটনৈতিকদের সঙ্গে কথা বলা হবে। গত সাত দশক ধরে যে পাকিস্তান ভারতের অংশ জবরদখল করে রয়েছে তা আরও একবার প্রমান হল। পাকিস্তানের সাম্প্রতীক পদক্ষেপেই স্পষ্ট হয়েছে ওই এলাকার মানুষের স্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবারই পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট গিলগিট বিল্টিস্তানে নির্বাচন হবে বলে ঘোষণা করেছিল। 

আরও পড়ুনঃ আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে রাজ্যেও শুরু হতে পারে প্লাজমা থেরাপি , তৈরি রয়েছে মেডিক্যাল কলেজ ...

আরও পড়ুনঃ শ্রমিক ট্রেন নিয়ে যুযুধান কংগ্রেস ও বিজেপি, ভাড়ায় ৮৫ শতাংশ ভর্তুকি রেলের ...

আরও পড়ুনঃ তৃতীয় লকডাউনে কী কী ছাড় দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, এক ঝলকে চোখ বুলিয়ে নিন