বিভ্রান্তিতে ভুগতেন মহম্মদ আলি জিন্না। যে পাকিস্তান দেশের তিনি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, তার সম্পর্কে তাঁর মনে কোনও আগাম ধ্যান-ধারনা ছিল না। ছিলনা কোনও দৃষ্টিভঙ্গিও। বিভ্রান্তির মধ্যেই পাকিস্তানের জন্ম হয়েছিল, তাই এখনও এই দেশ বিভ্রান্তিতেই ভুগছে। সরাসরি পাকিস্তানের ভিতে আঘাত করলেন সেই দেশের বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী পারভেজ হুদভয়।

সম্প্রতি করাচিতে 'আদাব উৎসব'-এ বক্ত-তা দিতে গিয়ে পারভেজ এই মন্তব্য করেন। শুধু ফাঁকা মন্তব্য নয়, নিজের সেই মন্তব্যের সমর্থনে রীতিমতো ঐতিহাসিক তথ্য তুলে ধরেন তিনি। জানান, ১৯৪৮ সালে করাচিতে বার কাউন্সিলের সামনে জিন্না বলেছিলেন পাকিস্তানে শুধু ইসলামি আইন প্রয়োগ করা হবে। তার আগে বলেছিলেন পাকিস্তান হাতে পেলে ভাবব সেই দেশ কেমন হবে।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, করদ রাজ্যগুলিকে নিয়ে কী করা হবে তার সম্পর্কে কিছু বলেননি জিন্না। এমনকি পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় হবে, না অন্যরকমভাবে হবে, তাও কোথাও বলা নেই। সেই সঙ্গে তিনি আক্ষেপ করেন, বর্তমান সময়ে য়ে কোনও দেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির জোরেই শক্তিশালি। সেখানে পাকিস্তানের এই বিষয়ে কোনও পরিকল্পনাই নেই। কারণ পাকিস্তানের জন্মই হয়েছিল জিন্নার বিভ্রান্তির মধ্য দিয়ে।

এমনকী জিন্নার দ্বিজাতি তত্ত্বের জন্যই উপমহাদেশে কোনওদিন শান্তি আসা সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন পারভেজ হুদভয়। সেই সঙ্গে পাকিস্তান জিন্নার প্রতিশ্রুতি মতো মুসলিমদের দ্বারা তৈরি নয় বলেও তিনি অভিযোগ করেন। তাঁর মতে তা সত্যি হলে বাংলাদেশি মুসলমানদের উপর অত্যাচার চালানো হত না। তাদের তুচ্ছ জ্ঞান করে তাদের উপর নির্যাতন চালিয়েছে পাকিস্তান বলে মেনে নেন তিনি।  

এমনকী বর্তমান সময়ে দ্বিজাতি তত্ত্বের বোঝা ঝেড়ে ফেলে পাকিস্তানের এগোন উচিত বলেও দাবি করেন তিনি। এই মন্তব্যের জন্য সরকার তাঁকে গ্রেফতার করতে করলে করুক বলে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন তিনি। এর আগে ২০১৭ সালে তিনি পাকিস্তানের তৎকালীন সরকারের সমালোচনা করেছিলেন। তিনি সেই সময় বলেছিলেন, পাকিস্তান 'ধর্মীয় মৌলবাদীদের দেশ' হয়ে যাচ্ছে।