আরও একবার পাকিস্তানে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতার চরম পরিচয় পাওয়া গেল। পাকিস্তানের অর্থনৈতিক রাজধানী করাচিতে বড় বড় আবাসনগুলিতে অমুসলিমদের বাড়ি বা ফ্লাট ভাড়া অথবা বিক্রি না করার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানের হিন্দু সমাজকর্মী কপিলদেব একটি টুইট করে এই তথ্য জানিয়েছেন।

বুধবার, তিনি একটি টুইট করে জানান, অমুসলিম হলে করাচির অভিজাত এলাকায় ফ্ল্যাট ভাড়া নেওয়া বা কেনা যাবে না। সঙ্গে তিনি কয়েকটি ছবিও পোস্ট করেছেন, যেখানে বাড়ির গায়ে উর্দু ভাষায় ওই নোটিশ সাটিয়ে দেওয়া থাকতে দেখা গিয়েছে। কপিল জানিয়েছেন, ওই বাড়িটি হল খালিক-উজ-জামান রোডের মাচিয়ারা রেসিডেন্সি।

কপিলের ওই টুইটের জবাবে এক টুইটার ব্যবহারকারী জানিয়েছেন, তিনি ২০১৮ সালে করাচিতে ফ্ল্যাট খুঁজছিলেন। সেই সময় ২০টিরও বেশি আবাসনে তাঁকে জানান হয়েছিল অমুসলিমদের ফ্ল্য়াট দেওয়া যাবে না। তিনি আরও দজানান, বাহাদুরাবাদের প্রায় সব আবাসনেই এই নিয়ম চালু আছে। তিনি আলাদা করে উল্লেখ করেছেন জমজম রেসিডেন্সি বলে একটি আবাসনের কথা। অনেক পাকিস্তানি কপিলের এই পোস্ট দেখে জানিয়েছেন, এটা ্ত্যন্ত লজ্জার বিষয়। তাঁরা সংখ্যালঘুদের বঞ্চনার বিরুদ্ধে।

সাম্প্রতিককালে আন্তর্জাতিক মহলে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের অভিযোগে বার বার মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের। দিন কয়েক আগে এক হিন্দু ডাক্তারি ছাত্রীকে তাঁর হস্টেলের ঘরে মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল। পুলিশ সেই ঘটনাকে আত্মহত্য়া বলে চালানোর চেষ্টা করলেও, পরিবারের অভিযোগ ছিল খুন করে তারপর ঘটনাটিকে আত্মহত্যা বলে সাজানোর চেষ্টা হয়েছে। তার কয়েকদিন আগে এক শিখ তরুণীকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়ে প্রথমে জোর করে ধর্মান্তর ও পরে বিবাহ করার অভিযোগ উঠেছিল।