বিশ্ব জুড়ে ত্রাস সৃষ্টি করেছে করোনা ভাইরাস। ইতিমধ্যে এই মারণ ভাইরাসের কবলে বিশ্বের ১৬২টি দেশ। মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজারেরও বেশি মানুষের। পৃথিবীজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গেছে ১ লক্ষ ৮৪ হাজারে। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ভারতেও বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। একই অবস্থা প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানেরও। পাক ভূখণ্ডে মঙ্গলবার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩৭। মারণ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে দেশটির ৬টি প্রদেশেই।

পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানাচ্ছে করোনায় এখনও পর্যন্ত সেদেশে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে সিন্ধ প্রদেশে। সেখানে সংক্রমণ মিলেছে ১৭২ জনের শরীরে। পঞ্জাবে আক্রান্তের সংখ্যা ২৬। খাইবাপ পাখতুনখাওয়াতে ১৬ জনের শরীরে মিলেছএ কোভিড-১৯ ভাইরাসের অস্বিস্ত। বালচিস্তানেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৬। ইসলামাবাদে সংখ্যা ৪। আর গিলগিট বালতিস্তানে মিলেছে ৩ করোনা আক্রান্তের সন্ধান। 

আরও পড়ুন: শহরে প্রথম করোনা রোগীর শরীরে নেই কোনও উপসর্গ, খোঁজ শুরু হল আক্রান্ত তরুণের সহযাত্রীদের

বর্তমানে ভারতের মতো করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় পর্যায়ে রয়েছে পাকিস্তান। তবে মঙ্গলবার সেদেশে একলাফে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে। ভাইরাস পরীক্ষায় ত্রুটির কারণে সেদেশে দ্রুত করোনা সংক্রমণ বেড়েছে বলেই জানা যাচ্ছে। পাশাপাশি কোয়ারেন্টাইনে যাদের রাখা হয়েছে তাদের থেকেও থাকছে রোগ সংক্রমণের আশঙ্কা। 

বালুচিস্তানের তাফতান সীমান্ত পেরিয়ে গত কয়েকদিনে পাকিস্তানে এসেছেন বহু মানুষ। এদের অধিকাংশই ইরাণ ফেরত তীর্থযাত্রী। এদের সকলকেই কোয়ারেন্টাইনে রাখছে পাক সরকার। পরিস্থিতি সামাল দিতে পাকিস্তানের অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী গুলাম সারওয়ার খান জানিয়েছেন, যাত্রীদের মেডিক্যাল পরীক্ষায় করোনার নেগেটিভ রেজাল্ট না দেখান পর্যন্ত সেদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না। 

আরও পড়ুন: অপহৃত বিধায়কদের উদ্ধারে গিয়ে পুলিশের জালে দিগ্বিজয়, স্পিকারকে চিঠি রাজ্যপালের

এর আগে বিদেশ ফেরত ১১৯ জনের শরীরে মেডিক্যাল পরীক্ষার ত্রুটির কারণে করোনা সংক্রমণের হদিশ মেলেনি। তারাই দেশের নানা প্রান্তে ঘুরে বেড়ানোয় এই মারণ ভাইরাস সংক্রমণের আরও আশঙ্কা বেড়েছে পাক ভূখণ্ডে।