বুধবার রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটল পঞ্জাবের হাসান আবদাল শহরের পাঞ্জা সাহিব গুরুদ্বারে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষের দাবি এটা একটা দুর্ঘটনা। কিন্তু এর পিছনে কোনও ষড়যন্ত্র থাকতে পারে, ইচ্ছাকৃতভাবেই কেউ আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে বলে অভিযোগ করেছেন দিল্লির অকালি দলের বিধায়ক মনজিন্দর সিং।

স্থানীয় প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, সামনে গুরু নানকের ৫৫০তম জন্মদিবস। সেই উপলক্ষ্যে কর্তারপুর করিডোর খথুলে দেওয়া হবে। তার আগে গুরুদ্বারটির সংস্কারের কাজ চলছিল। বুধবার সন্ধা-রাতে
ঝালাইয়ের কাজ চলছিল। তার পাশেই কয়েকটি কম্বল রাকা ছিল। সেই সময়ই ঝালাইয়ের একটি ফুলকি সেই কম্বলের উপর দিয়ে পড়ে। তার থেকেই আগুন ধরে যায়।

হাসান আবদাল শবরের অ্যাসিস্টান্ট কমিশনার আদনান অঞ্জুম রাজা জানিয়েছেন, গুরুদ্বারের কর্মী ও প্রশাসনের প্রচেষ্টায় অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। আগুনে গুরুদ্বারটির লম্বা হল ঘরের কিছুটা ক্ষতি হলেও সেই ক্ষতির পরিমান সাংঘাতিক কিছু নয়।

স্থানীয় তরফে এটিকে দুর্ঘটনা বলে দাবি করলেও তা মানতে নারাজ দিল্লির শিরোমনি অকালি দলের বিধায়ক মনজিন্দর সিং। তিনি এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন, এটি গুরু নানক দেবজির স্থান। এর কোনও ক্ষতি হলে সারা বিশ্বের শিখ সম্প্রদায়ের ভাবাবেগে আঘাত লাগবে। তাই তাঁর দজাবি, এর পিছনে কোনও ষড়যন্ত্র আছে কিনা, কেউ ইচ্ছে করে আগুন লাগিয়েছিল কিনা তা পাক সরকারকে স্পষ্ট ভাষায় জানাতে হবে।