মার্কিন সফরে প্রথম দিনেই অস্বস্তিতে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ওয়াশিংটনে তাঁর বক্তৃতা চলার সময়েই বালুচিস্তানে পাক সেনাবাহিনীর নৃশংসতা নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বালুচিস্তানের বিক্ষোভকারীরা। জাতীয় সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বক্তৃতা চলাকালীনই পাকিস্তান বিরোধী স্লোগান তুলতে শুরু করেন বিক্ষোভকারীরা। পাশাপাশি বালুচিস্তানের স্বাধীনতার দাবিতেও সরব হয়ে ওঠেন তাঁরা।

তিন দিনের মার্কিন সফরের প্রথম দিনেই ওয়াশিংটন ডিসির এরিনা ওয়ান স্টেডিয়ামে মার্কিন নিবাসী পাক নাগরিকদের জন্য আয়োজিত একটি সভায় বক্তব্য রাখছিলেন তিনি। এরই মাঝে আকস্মিকভাবেই বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে শুরু করেন বালুচিস্তান সমর্থকরা। বালুচিস্তানে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে দাবি তোলেন তাঁরা। এর ফলে সাময়িকভাবে অস্বস্তিতে পড়েন ইমরান খান। কিন্তু না থেমে তার মধ্যেই বক্তৃতা চালিয়ে যান তিনি। 

 

এর মাঝে বিক্ষোভকারীদের উত্তেজিত হতে দেখে তাঁদের বসে পড়তে অনুরোধ করেন উপস্থিত দর্শকের একাংশ। সভা চলাকালীন এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতিকে সামাল দিতে অবশেষে এগিয়ে আসেন স্টেডিয়ামে নিরাপত্তাকর্মীরা। তাঁদের উদ্যোগেই বিক্ষোভকারীদের স্টেডিয়াম থেকে বের করে দেওয়া হয়। সম্প্রতি এই ভিডিওই ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

প্রসঙ্গত এদিন মুত্তাহিদা কাসমি মুভমেন্ট-এর সদস্যরা এবং অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সদস্যরা এদিন যৌথভাবে পাক প্রধানমন্ত্রীর ওয়াশিংটন সফরে নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে শুরু করেন। যদিও এদিন পাক গণমাধ্যম যাবতীয় বিক্ষোভ আন্দোলনকে পাশে সরিয়ে রেখে ইমরান খানের বক্তৃতার উপরেই দৃষ্টিপাত করেছিল।