দেশব্যাপী লকডাউনের কারণে বহু পারিবারে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিচ্ছে। এক সঙ্গে এতটা সময় বাড়িতে থাকার কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঘরোয়া অশান্তির পরিমান অতিরিক্ত মাত্রায় বৃদ্ধি পেয়েছে। সমীক্ষা অনুযায়ী, মাত্র ১১ দিনে জাতীয় মহিলা কমিশন ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স সম্পর্কিত প্রায় ৯২ হাজার অভিযোগ জমা পড়েছে। এই ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে, একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ হিউম্যান রাইটস, লিবার্টিজ অ্যান্ড সোশ্যাল জাস্টিস, দিল্লি হাইকোর্টে একটি আবেদন পেশ করেছে।

আরও পড়ুন- লকডাউন ২-এর কী কী করতে পারবেন, কী কী পারবেন না, দেখে নিন একনজরে

লকডাউনে গার্হস্থ্য হিংসায় ক্ষতিগ্রস্থদের সুরক্ষা এবং তাদের জন্য পৃথক আবাসন এবং অন্যান্য সহায়তার ব্যবস্থা করার আবেদন করেছেন এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। হাইকোর্ট এই আবেদনের গ্রহণ করে যথা সময়ে শুনানি দেওয়ার বিষয়ে বিবেচনা করবে বলে জানিয়েছে। আবেদকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে ২৪ শে মার্চ থেকে শুরু হওয়া লকডাউনে মহিলাদের উপর অত্যাচার বেড়েছে। বেশ কিছু জায়গায় আর্থিক সমস্যা ও সম্পর্কের শিথিলতার কারণে গার্হস্থ্য হিংসার উত্থান হয়েছে। 

আরও পড়ুন- হোয়াটসঅ্যাপে আপনাকে কেউ ব্লক করেছে, কীভাবে আনব্লক করবেন নিজেকে রইল সহজ উপায়

একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সারা দেশে শিশুদের শোষণের ঘটনাও ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। লকডাউনটি শিশুদের সহায়তা প্রতিও নজরদারী রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। এই বিষয়ে অনেকেই দাবি করেছেন যে মহিলা ও শিশুদের সুরক্ষা ব্যবস্থা লকডাউনেও বজায় রাখতে হবে। প্রয়োজনে এর জন্য পৃথক হেল্পলাইন নম্বরে ব্যবস্থা রাখতে হবে। যাতে মহিলা এবং শিশুদের তাত্ক্ষণিক সহায়তা বা সমস্যা থেকে উদ্ধার করা যায়। মহিলা ও শিশুদের কাউন্সেলিংয়ের জন্যও যথাযথ ব্যবস্থা রাখার কথা জানিয়েছে আবেদনকারী সংস্থা।