ফের কলঙ্কিত ক্রীড়াঙ্গন। ক্রীড়াক্ষেত্রে যৌন হেনস্থা, ধর্ষণ ও যৌন ব়্যাকেট চালানোর অভিযোগ। এক মহিল কুস্তিগীরকে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ তার কোচ ও এক সিআরপিএফ কর্তার বিরুদ্ধে। ঘটনাস্থলও সেই রাজধানী। দিল্লির নজফগড়ের ঘটনা। এই অভিযোগ সামনে আসার পরই ছড়িয়েছে তীব্র চাঞ্চল্য। ধর্ষণ, যৌন হয়রানি এবং ভয় দেখানোর অভিযোগে ওই দু’জনের বিরুদ্ধে দিল্লির নজফগড়ের বাবা হরিদাস থানায় ৩ ডিসেম্বর এফআইআর করা হয়।ছে। শুরু হয়েছে তদন্তও। সিআরপিএফের পক্ষ থেকেও তদন্তে সবরকম সাহায্য করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

অভিযোগকারী ৩০ বছরের মহিলা সিআরপিএফের জওয়ান ও একজন মহিলা কুস্তিগীর। তার কোচ সুরজিত সিং ও ডিআইজি খাজান সিংয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন ওই মহিলা কুস্তিগীর। অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন,'সুরজিৎ সিংহ এবং খাজান সিংহ সিআরপিএফ-এর মধ্যে একটি যৌন র‍্যাকেট চালান। তাঁদের সঙ্গে আরও অনেকে যুক্ত। তাঁরা মহিলা কনস্টেবলদের যৌন হেনস্থা করেন।' নির্যাতিতার অভিযোগ,'২০১৪ সালের অক্টোবর এবং নভেম্বরে নির্যাতিতাকে দক্ষিণ দিল্লির বসন্ত কুঞ্জের এক ফ্ল্যাটে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে খাজান সিং এবং সুরজিত  সিং তাঁকে ৩ দিন ধরে ধর্ষণ করেন।'কাওকে না  বলার জন্য প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। 

পঞ্জাবের ভাটিন্ডার ওই মহিলা কুস্তিগীর তার অভিযোগে আরও জানিয়েছেন,অনুশীলনে খাজান সিং ও সুরজিত সিং অনুশীলনের নামে মেয়েদের খারাপ ভাবে স্পর্শ করতেন তিনি। দলের মেয়েদের আলাদা ভাবে দেখা করার নির্দেশ দিতেন। ফোনে অশ্লীল মেসেজ পাঠাতেন। আমাকে ডিউটির আগে একা দেখা করতে বলেছিলেন। তাঁর উদ্দেশ্য একেবারেই সাধু ছিল না। খাজান সিংহের কথাতেই কাজ করেন সুরজিত সিংহ। দলের মেয়েদের বাধ্য করা হত খাজানের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে।' এই অভিযোগ গুরুত্ব সহকারে দেখছেন পুলিস আধাকিরকরা। অভিযপক্তদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন অভিযোগকারী।