প্রত্যেক খেলোয়াড়ের একটি পয়া টুর্নামেন্ট থাকে। যেই টুর্নামেন্ট সচরাচর ওই খেলোয়াড়কে খালি হাতে ফেরায় না। যেমন ফেডেরারের উইম্বলডন, নাদালের ফ্রেঞ্চ ওপেন। তেমনই নোভাক জকোভিচের পয়া টুর্নামেন্ট হলো অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। অষ্টমবার এই খেতাব জিতলেন তিনি। সেই সঙ্গে জিতে নিলেন নিজের ১৭ তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম। 

রবিবার মেলবোর্নে ডমিনিক থিয়েমের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে নামেন জোকার। দুজনের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়। প্রথম সেট ৬-৪ ফলে জিতে নেন। দ্বিতীয় সেটে ঘুরে দাঁড়ান থিয়েম। তার পক্ষে ফলাফল দাঁড়ায় ৪-৬। এর পর তৃতীয় সেটটিও ২-৬ ফলাফলে জিতে নেন থিয়েম। এখান থেকেই ঘুরে দাঁড়ায় জোকোভিচ। অসাধারণ টেনিস খেলে ৬-৩ ফলাফলে চতুর্থ সেটটি জিতে নেয় জোকার। ম্যাচ গড়ায় পঞ্চম সেট অবধি। চরম উত্তেজনা তৈরি হয় কোর্টে। মাঝে একবার মেডিক্যাল টাইমআউট নিতে হয় জোকোভিচকে। এরপর চেয়ার আম্পায়ারের সাথেও বিরোধ ঘটে তার। এই সমস্ত উত্তেজনা কাটিয়ে শেষ পর্যন্ত হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে ৬-৪ ফলে সেটটি জিতে ম্যাচ নিজের পকেটে পুরে ফেলেন জোকোভিচ। 

ম্যাচ জিতে খুশিতে অভিভূত হয়ে পড়েন জোকার। আগে থেকেই ধারণা ছিল থিয়েম এরকম চ্যালেঞ্জ পেশ করবে, তার জন্য মানসিকভাবে তৈরি ছিলেন, ম্যাচের পর জানিয়েছেন জোকোভিচ। থিয়েমকে আগের থেকে অনেক পরিণত খেলোয়াড় বলেও আখ্যা দিয়েছেন জোকার। 

অষ্টম বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জেতার পর বৃহত্তর লক্ষ্য স্থির করে ফেলেছেন জোকার। এবার তার পরবর্তী লক্ষ্য রেকর্ড সংখ্যক গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতা। যে রেকর্ড আপাতত ফেদেরারের দখলে রয়েছে। সুইস তারকার গ্র্যান্ড স্ল্যাম সংখ্যা বর্তমানে ২০। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে স্পেনের রাফায়েল নাদাল। তার গ্র্যান্ড স্ল্যাম সংখ্যা আপাতত ১৯। পরবর্তী দুটো মরশুমে ভালো টেনিস খেলে সর্বোচ্চ সংখ্যক গ্র্যান্ড স্ল্যামের রেকর্ডটি নিজের করে নিতে চান জোকার।

গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতার পাশাপাশি নিজের পরিবারকেও আগের থেকে বেশি সময় দিতে চান জোকার। ফেদেরার একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর তার শিডিউলে কাটছাঁট করে শিডিউল হ্রাস করেছিলেন। এতে তার কেরিয়ারের মেয়াদ বেড়েছে। জোকোভিচও এবার তাই করতে চান। আর সময় দিতে চান তাঁর সন্তানকে।