দিল্লির বায়ুদূষণ ইতিমধ্যেই বিপদসীমা পেড়িয়ে গিয়েছে। যাঁর মধ্যে কোনও রকমের কোনও হস্তক্ষেপ করতে পারছে না দূষণ নিয়ন্ত্রণকারি সংস্থাও। তবে এর মাঝেই শুরু হয়ে গিয়েছে দিল্লির এমপি গৌতম গম্ভীরকে নিয়ে ব্যঙ্গ। কেন্দ্রীয় সরকারে দ্বারা একটি সংস্থার বৈঠকে দিল্লির দূষণ নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা থাকলেও, সেই বৈঠকে হাজির ছিলেন না গৌতম গম্ভীর। তিনি তখন ব্যস্ত ছিলেন ইন্দোরে ভারত ও বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচে ধারাভাষ্য দিতে। সেখান থেকেই শুরু হয়ে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের ক্ষোভ। গম্ভীরকে শুক্রবার এই বিষয় নিয়ে বেশ আক্রমণ করতেও দেখা যায় আমা আদমি পার্টির তরফ থেকে। তবে তারই মাঝে রবিবার দিল্লিতে ঘটলো আরও বিস্ময়কর ঘটণা। দিল্লির এমপি গৌতম গম্ভীরের ব্যাপারে এবার অপ্রীতিকর পোস্টার পড়লো দিল্লির রাস্তা-ঘাটে।

 

আরও পড়ুন, লক্ষ্মণকে নিয়ে ইন্দোরে জিলিপি খাচ্ছেন গম্ভীর, আপের চাপে দিতে হল বিবৃতি, তদন্ত করবে কেন্দ্র

ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচের ধারাভাষ্য দেওয়ার মাঝে গম্ভীরকে নিজের স্বতীর্থ ভিভিএস লক্ষ্মণের সঙ্গে একটি দোকানে দেখা গিয়েছিল জিলিপি খেতে। সেই সঙ্গে তাঁর হাতে ছিল গাজরের হালুয়া। আর সেই ছবি টুইটরে পোস্ট করার পরই বিস্ফোরক ভাবে পাল্টা টুইট করেছিল আম আদমি পার্টি। আর সেখান থেকেই শুরু হয়ে এই ঘটনার সূত্রপাত। তবে সেই টুইটের পাল্টা জবাব দেন গম্ভীরও। তবে সেই সব কেটে গেলেও, রবিবার দিল্লিতে ঘটলো অন্যরকমের ঘটণা। রাস্তায় রাস্তায় গম্ভীরকে ব্যঙ্গ করে দেখা গেল গম্ভীরের হারিয়ে যাওয়ার পোস্টার।

দেখুন ভিডিও, অযোধ্যা মামলার রায়ে গৌতমের ‘গম্ভীর’ প্রতিক্রিয়া

সেই পোস্টারে লেখা ছিল, গৌতম গম্ভীর হারিয়ে গিয়েছেন, 'তিনি জিলিপি খেতে ভালো বাসতেন। আর সেই জিলিপি খেতেই তাঁকে শেষ দেখা গিয়েছিল। তারপর থেকে আর তাঁকে পাওয়া যাচ্ছে না। পুরো দিল্লি তাঁকে খুঁজছে।' এই পোস্টার পরার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতেও ছেয়ে গিয়েছে এই ঘটণা। আর সেই সঙ্গে গম্ভীরকে বানানো হয়েছে হাসির খোরাক। একই সঙ্গে এদিন দিল্লির রাস্তায় দেখা গম্ভীরের ছবি নিয়ে দেখা যায় কিছু সংখ্যক সাধারণ মানুষকেও। গম্ভীরকে ব্যাঙ্গ করে তাঁর জন্য এক থালা জিলিপি নিয়ে রাস্তায় নামলেন সাধারণ মানুষ।