ফের সর্বসমক্ষে সরকারের গাফিলতি। অর্জুন পুরস্কারের জন্য দ্যুতি চাঁদ এবং খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য হরভজন সিংয়ের মনোনয়ন বাতিল করেছে দেশের ক্রীড়ামন্ত্রক। ওড়িশা সরকার এবং পঞ্জাব সরকারের গাফিলতির জন্য এই দুই খেলোয়াড়ের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

নাম জমা দেওয়ার নির্ধারিত সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর অর্জুন পুরস্কারের জন্য স্প্রিন্টার দ্যুতি চাঁদের নাম মনোনয়নের জন্য প্রস্তাব করেন ওড়িশা সরকার। তাই তাঁর মনোনয়ন বাতিল করেছে ক্রীড়ামন্ত্রক। স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া জানিয়েছে, সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি পদক তালিকাও পর পর সাজানো ছিল না দ্যুতির। পরে ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফ থেকে অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া-কে তাঁর পদক জয়ের তালিকা দিতে বলা হয়েছিল। সেই অনুসারে পাঁচ নম্বরে থাকে দ্যুতির মনোনয়ন। এর পরেই তাঁর মনোনয়ন বাতিল হয়।

চলতি মাসেই নাপোলিতে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমে ১০০ মিটার দৌড়ে সোনা জিতেছেন দ্যুতি চাঁদ। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, তিনি ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গে দেখা করেছিলেন এবং নাপোলিতে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমে জেতা সোনার পদকটিও দেখান তাঁকে। অর্জুন পুরস্কারের মনোনয়ন ফাইল আবারও পাঠানোর জন্য আর্জি করেন। মুখ্যমন্ত্রী তাতে সম্মতি জানিয়ে তাঁকে আগামী প্রতিযোগিতার জন্য প্রস্তুতি নিতে বলেন। 

অন্যদিকে একই ঘটনা ঘটেছে ভারতের প্রাক্তন তারকা স্পিনার হরভজন সিংয়ের সঙ্গেও। সঠিক সময় প্রস্তাব জমা না পড়ায় হরভজনের খেলরত্ন পুরস্কারের মনোনয়ন বাতিল করেছেন ক্রীড়ামন্ত্রক। রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য হরভজন সিংয়ে নাম প্রস্তাব করেছিল পঞ্জাব সরকার। সরকারের এই উদ্যোগে খুশি হয়েছিলেন সবাই। কিন্তু সে চেষ্টা সফল হল না। রাজীব খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য আবেদনের শেষ দিন ছিল ৩০ এপ্রিল। আর হরভজনের মনোনয়ন জমা পড়েছে ২৫ জুন। তাই ক্রীড়ামন্ত্রক ওই আবেদনও বাতিল করে দেয়।