দুই দুইবার ক্রিড়া জগতের সর্বোচ্চ মঞ্চ অলিম্পিকের মঞ্চে পদক জিতেছিলেন কুস্তিগির সুশীল কুমার। সেই অলিম্পিকের সোনালি ইতিহাসে কালিমালিপ্ত হল শনিবার। ছত্রসল স্টেডিয়ামের ঝগরার জেরে এক কুস্তিগীরকে হত্যার দায়ে গ্রেফতার হলেন তিনি। এদিন পঞ্জাব থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশের একটি দল। সূত্রের খবর, সুশীল কুমার-এর সঙ্গেই গ্রেফতার হয়েছেন, তাঁর ডান হাত বলে পরিচিত অজয় ​​কুমার-ও। তাদের দুজনকেই গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দিল্লিতে আনা হয়েছে।

গত ৪মে রাতে নয়াদিল্লির ছত্রসল স্টেডিয়াম চত্বরে এক ঝগরার জেরে, সুশীল কুমার ও আরও কয়েকজন কুস্তিগীর, তাদেরই কয়েকজন সতীর্থের উপর হামলা করেছিল বলে অভিযোগ। বেধড়ক মারের চোটে সাগর রানা নামে এক কুস্তিগীরের মৃত্যু হয়। হামলার কারণে সাগর রানার দুই বন্ধু সোনু ও অমিত কুমারও গুরুতর আহত হয়েছিলেন। সাগর রানার মৃত্যুর পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিলেন সুশীল কুমার ও অজয় ​​কুমার। দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে পলাতক কুস্তিগীরের খোঁজ দেওয়ার জন্য এক লক্ষ টাকার পুরষ্কারও ঘোষণা করা হয়েছিল। এদিন ছিক কোথা থেকে পাওয়া খবরে ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করল পুলিশ কতা এখনও জানা যায়নি।

দিল্লি পুলিশ সুশীল কুমার ও অজয় কুমারের বিরুদ্ধে হত্যা, হত্যাকাণ্ডের দোষ, অপহরণ, গুরুতর আঘাত করা, স্বেচ্ছায় আঘাত করা, জোর করে আটকে রাখা, ভয় দেখানোর মতো অভিযোগে মামলা দাযের করেছে।  তাদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য পরোয়ানাও জারি করেছিল দিল্লি পুলিশ। অলিম্পিয়ান কুস্তিগিরের নামে লুক আউট নোটিশও জারি করা হয়েছিল। এফআইআর-এ সরকারী আদেশ অমান্য, সংক্রামক রোগ ছড়িয়ে পড়া লঙ্ঘন, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র-সহ ভারতীয় দণ্ডবিধি এবং অস্ত্র আইনের অধীনে আরও অনেকগুলি মামলা দায়ের করা হয়েছে।