অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের মহিলা সিঙ্গলস ফাইনাল নিয়ে কৌতূহলের অন্ত ছিল না। ফেভারিটস-রা আগেই বিদায় নিয়েছে। যাঁরা ফাইনালে উঠেছেন, তাঁদেরকে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কেউ হিসাবের মধ্যে রাখেননি। এহেন ফাইনালে কে জিততে পারে সে নিয়ে আগাম কোনো ধারণা ছিল না। কিন্তু শনিবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উপভোগ্য লড়াই দেখতে পেল দর্শকরা। সোফিয়া কেনেন এবং গুরবিনে মুগুরুজার মধ্যে লড়াই গড়ায় তৃতীয় সেট অবধি। শেষে ৪-৬, ৬-২, ৬-২ ফলে ম্যাচ নিজের পকেটে পুরে নেয় কেনেন। 

পিছিয়ে পরেও ম্যাচ জিতে তৃপ্ত সোফিয়া। তিনি জানিয়েছেন টুর্নামেন্ট শুরুর আগে তিনি ভাবতেই পারেননি যে ফাইনালে পৌঁছবেন এবং জিতবেন। পুরো ব্যাপারটাই তার কাছে একটি স্বপ্নের মতো। তিনি আরো জানান যে সেরা টেনিসটি খেলতে পেরেছেন বলেই জয় এসেছে। নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে গর্বিত তিনি তৃপ্ত এবং গর্বিত বলে জানিয়েছেন রাশিয়ায় জন্ম নেওয়া এই আমেরিকান খেলোয়াড়।

রাশিয়ান কালচার যে তার চরিত্রগঠনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছেন তা মেনে নিয়েছেন সোফিয়া। মারিয়া শারাপোভা যে তাকে টেনিসে উদ্বুদ্ধ করেছে তাও জানান সোফিয়া। ৫ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম চ্যাম্পিয়ন শারাপোভার ১৭ বছর বয়সে গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয় এখনও তাকে প্রেরণা জোগায় বলে জানিয়েছেন সোফিয়া। 

এই মুহুর্তে আমেরিকান টেনিস খেলোয়াড়দের মধ্যে শীর্ষস্থানে রয়েছেন তিনি। সেরেনা উইলিয়ামসকে টপকে এই কৃতিত্ব অর্জন করা খুবই গর্বের বিষয় বলে জানিয়েছেন সোফিয়া। অপরদিকে মুগুরুজা ২০১৯ এ কোন টুর্নামেন্টে ভালো পারফরম্যান্স করতে পারছিলেন না। সেখান থেকে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উঠেছেন। হতাশার মধ্যেও নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে সন্তুষ্ট বলে জানিয়েছেন মুগুরুজা।