মোবাইলের প্রতিযোগীতায় বেশ জনপ্রিয় স্মার্টফোনের এই কোম্পানি। এই সংস্থার একের পর এক স্মার্টফোন ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে গ্রাহকদের মধ্যে। স্টাইলিশ লুক-সহ উন্নতমানের ফিচার এই ফোন জনপ্রিয় হওয়ার অন্যতম কারণ। ভারতীয় বাজারে বিক্রি শুরু হল রিয়েলমি এক্সফিফটি প্রো-এর এই ফোন। এই ফোনে সাধ্যের মধ্যে রয়েছে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। এই সংস্থা আনছে নতুন ফ্ল্যাগশিপ ফোন। একাধিক গ্রেডিয়েন্ট ফিনিশে পাওয়া যাবে এই স্মার্টফোন। লঞ্চের পর থেকেই ফোনপ্রেমীদের নজরে আসে। জেনে নেওয়া আরও কী কী নতুন ফিচার রয়েছে রিয়েলমি এক্সফিফটি প্রো স্মার্টফোনে।

আরও পড়ুন- দীর্ঘ সময় অবধি হেডফোন ব্যবহার করেন, জেনে নিন কি ক্ষতি করছেন নিজের

আরও পড়ুন- স্টাইলিশ লুক-সহ উন্নতমানের ফিচার, বিক্রি শুরু হল ভিভো ভিনাইটিন স্মার্টফোন

 ইতিমধ্যেই এই ফোন ঘিরে বেশ উত্তেজনা দেখা গিয়েছে ফোনপ্রেমীদের মধ্যে। এর আগেও রিয়েলমি-র ফোন বেশ ভালো ব্যবসা করেছে ভারতীয় বাজারে। তাই এবারে রিয়েলমির এই নতুন ফোনও ভারতীয় গ্রাহকদের মন কাড়বে বলে আশাবাদী সংস্থা। ফ্ল্যাগশিপ সিরিজের এই ফোনে রয়েছে দুর্দান্ত ডিসপ্লে, শক্তিশালী চিপসেট, বিশাল ব্যাটারি ও ফাস্ট চার্জিং। এটাই ভারতের প্রথম ফাইবজি স্মার্টফোন।এই ফোনে রয়েছে ফাইবজি কানেক্টিভিটির সুবিধা ওয়াটার-ড্রপ নচ সহ ডিসপ্লে। ফোনের পিছনে রয়েছে চারটি ক্যামেরা। রিয়েলমি এক্সফিফটি প্রো-তে থাকছে ৬.৪৪ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে। সেই সঙ্গে থাকছে গোরিলা গ্লাস এর সুরক্ষা। এই ফোনের ক্যামেরায় ক্রোমা বুস্ট, স্লো মোশন ভিডিও, এইচডিআর মোডও থাকছে।

আরও পড়ুন- ৪৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা-সহ লঞ্চ করছে রেডমি নোট ৯ প্রো, রইল বিস্তারিত

 এই স্মার্টফোনে সেলফি ক্যামেরার জন্য রয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর। প্রাইমারি ক্যামেরায় থাকছে ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর + ১২ মেগাপিক্সেল অপটিক্যাল জুম +৮ মেগাপিক্সেলে আল্ট্রা ওয়াইড সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর-সহ এইচডিআর প্যানোরোমার সুবিধা। এই ফোন দাম সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি। রিয়েলমি এক্সফিফটি প্রো-এর সেল-এ  ৬ জিবি ভেরিয়েশনের দাম ৩৭,৯৯৯ টাকা। ৮ জিবি ভেরিয়েশনের ৩৯,৯৯৯ টাকা ও ১২ জিবি ভেরিয়েশনের ৪৪,৯৯৯ টাকা। এই ফোনে রয়েছে ফাস্ট চার্জিং এর সুবিধা-সহ ৪২০০ এমএএইচের ব্যাটারি। রিয়েলমি এক্সফিফটি প্রো স্মার্টফোনে থাকছে ৬ জিবি, ৪ জিবি ও ১২ জিবি ব়্যাম সেই সঙ্গে ১২৮ জিবি স্টোরেজে ক্যাপাসিটি। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যানড্রয়েড ১০।