ভারতীয় ভ্রমণপিপাষুদের কাছে ভুটান একটি অন্যতম গন্তব্য। ভুটানের মন্ত্রমুগ্ধকর সৌন্দর্য, অত্যাশ্চর্য প্রাকৃতিক দৃশ্য বরাবর আকর্ষণ করেছে পর্যটকদের। ভারতীয় পর্যটকদের কাছে খুব প্রিয় একটি গন্তব্য হয়ে দাঁড়িয়েছে ভুটান। অনেক দিন অবধিই তাই ভারতীয় পর্যটকদের জন্য ফ্রি ভিসার ব্যবস্থা ছিল এই প্রতিবেশী রাজ্যে।  এত দিন বিনা শুল্কে ভুটানে যে কোনও সময় বেড়াতে যেতে পারতেন ভারতীয়রা। তবে বর্তমানে ভুটান সরকার নতুন শুল্ক চালু করেছেন ভারতীয়দের জন্য।

আরও পড়ুন- ধ্বংসের মুখে পৃথিবী, দ্রুত গলতে শুরু করেছে হিমবাহ, প্রমাণের জন্য বরফ জলে সাঁতার আবহাওয়াবিদের

সম্প্রতি ভুটান  ঘোষণা করেছে যে ২০২০ সালের জুলাই মাস থেকে তারা ১২ বছরের উর্দ্ধে জনপ্রতি দৈনিক ১২০০ টাকা আদায় করবে। এই নতুন নিয়মে ভারত ছাড়া অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য দেশগুলি হ'ল মালদ্বীপ এবং বাংলাদেশ। ৬ থেকে ১২ বছরের মধ্যে বয়েসের জন্য এই শুল্ক হল মাথাপিছু প্রতিদিন ৬০০ টাকা করে। এই বিষয়ে ভুটান সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পর্যটকদের অতিরিক্ত চাপ কমানোর জন্যই এই শুল্কের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- খুব খিদের সময় এই খাবার ভুলেও নয়, হতে পারে মারাত্মক ক্ষতি

ভারতীয় পাসপোর্টধারীদের জন্য এসডিএফ অর্থাৎ পর্যটন কর অন্যান্য দেশের নাগরিকদের তুলনায় বেশ কম। অন্যান্য দেশগুলির ক্ষেত্রে এই শুল্ক হল প্রতিদিনের জন্য ২৫০ ডলার যা ভারতীয় মূল্যে ১৭ হাজার ৮১১ টাকা। ফি প্রবর্তনের সিদ্ধান্তটি দেশটির জাতীয় সংসদ ও ভুটানের ট্যুরিজম লেভি দ্বারা ২০২০ হিসাবে গৃহীত হয়েছিল।

স্থলপথে ভুটান গেলে ভারতীয় পর্যটকদের ফুয়েন্টশোলিংয়-এ ভুটানের রয়্যাল গভঃ ইমিগ্রেশন অফিসের বৈধ ভ্রমণের নথিরগুলির ভিত্তিতে প্রবেশের অনুমতি নিতে হবে। আর বিমানে ভুটান ভ্রমণে গেলে ভারতীয়দের কেবল তাদের ভ্রমণের নথি এবং প্রবেশের অনুমতি ভুটানের পারো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দেখাতে হবে। প্রবেশের অনুমতিটি দিয়ে ভারতীয় পর্যটকরা থিম্পু এবং পারো ভ্রমণ করতে পারবেন।