জীবদেহে শক্তির উৎস হল খাদ্য। জীবদেহের যাবতীয় বিপাক ক্রিয়া, যেমন : শ্বসন, রেচন,পুষ্টি ইত্যাদি এবং শারীরবৃত্তীয় ক্রিয়াকলাপ, যেমন-বৃদ্ধি, চলন-গমন, জনন ইত্যাদি নিয়ন্ত্রিত হয়। সুতরাং জীবন ধারনের জন্য প্রত্যেক জীবকেই খাদ্য গ্রহণ করতে হয়। তাই, যে সব আহার্য সামগ্রী গ্রহণ করলে জীবদেহের বৃদ্ধি, পুষ্টি, শক্তি উৎপাদন ও ক্ষয়পূরন হয়, তাকেই খাদ্য বলে। আমাদের মধ্যে অনেকেই এমন আছেন সময় খিদে পেলে যা পান পেট ভরানোর জন্য খেয়ে নেন। তবে জানেন কী, এই স্বভাব স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। কারণ এমন কিছু খাবার আছে, যা খালি পেটে বা খুব খিদে পেলে খাওয়া একদম উচিৎ নয়। জেনে নিন কোন খাবারগুলি খিদের সময়ে একেবারেই খেতে নেই।

আরও পড়ুন- পেটব্য়থা হলে নিজে নিজেই ডাক্তারি করবেন না যেন

খালি পেটে কখনই চা, কফি, ফলের রস খাওয়া উচিৎ নয়। এর ফলে অ্যাসিডিটি তৈরি করে। ফলে পেট খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বিশেষ করে যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা রয়েছে, তাদের খালি পেটে চা বা কফি পান করাটা অত্যন্ত ক্ষতিকর। তাই খিদে পেলে প্রথমে খানিকটা জল পান করুন তারপর সবজি খান। বা সবজির সালাদও খেতে পারেন। সেদ্ধ ডাল বা মশলা ছাড়া মুরগীর মাংসও খেতে পারেন।

অনেক সময় এমনও দেখা যায় খাবার খাওয়ার কিছুক্ষণ আগেই হালকা খিদে পেয়ে যায়। ঠিক তখন হয়তো লাঞ্চ করার সময়ও হয়নি। এমন সময় আমরা অনেকেই খুচখাচ কিছু খাবার খেয়ে নিন। কুকিজ বা চিপস যা সাধারনত মুখ চালানোর কাজ করে। তাই লাঞ্চের আগে হালকা খিদের সময় বিস্কুট বা চিপস না খেয়ে একটা কেক বা স্যান্ডউইচ খান। এতে পেট ভরাও থাকবে আর তেমন একটা ক্ষতিও করবে না।

আরও পড়ুন- লিভার সিরোসিসের সমস্যায় ভুগছেন, ঝুঁকি কমাতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি

দুপুরের খাওয়ার খেতে দেরি হয়ে গেলে হাতের কাছে পাওয়া ঝাল ঝাল কোনও মুখরোচক খাবার খেয়ে নিলেন, এমনটা হলেই মুশকিল। খিদের সময় খুব মশলা বা ঝাল ঝাল খাবার খেলে আপনার হজমের সমস্যা তৈরি হবে। খালি পেটে ঝাল খাবার খেলে এই মশলা আপনার পাকস্থলীর ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলে। তাই এই ধরনের খাবার খাওয়ার আগে দুধ বা দই খেতে পারেন। এতে সরাসরি ঝালের প্রভাব পাকস্থলীর ওপর পড়বে না। ফলে শরীরও সুস্থ থাকে।

যতই পছন্দের হোক খালি পেটে কখনই ফল খেতে নেই। একটা আপেল বা একটা কলা খেয়ে বেশি ক্ষণ পেট ভরা থাকে না। আর সকাল বা ফল খাবার আগে প্রোটিন জাতীয় খাবার খেয়ে তবেই ফল খাওয়া উচিত। সে রকম হলে খানিকটা বাদাম খেয়ে নিতে পারেন। এর পরে ফল খেলে কোনও অসুবিধা হয় না।