বেজায় ফেঁসেছেন মার্কিন পর্ন তারকা রন জেরেমি। আরো ২০ জন নারীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগ আনা হয়েছে এই পর্ন তারকার বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়েছে, ১৫ বছরের কিশোরীও  রেহাই পায়নি এই মার্কিন পর্ন তারকার হাত থেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নির কার্যালয় থেকে জানানো হয়, গত জুন মাসে তার বিরুদ্ধে নতুন করে ধর্ষণের তিনটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।  লস অ্যাঞ্জেলসের সরকারি আইনজীবী জানিয়েছেন, ২০০৪ সাল থেকেই জেরেমির বিরুদ্ধে একের পর এক যৌন নির্যাতন চালানোর অভিযোগ উঠছে। এসব অভিযোগ প্রমাণিত হলে ২৫০ বছর পর্যন্ত সাজা হতে পারে এই পর্ন তারকার। তবে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জেরেমি।

 

 

৬৭ বছর বয়সী রন জেরেমি পর্ন জগতে বেশ প্রভাবশালী ব্যক্তি। সম্প্রতি ১৩  বছর থেকে শুরু করে ৫৪ বছরের মোট ১৩  জন নারী তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন। জেরেমির বিরুদ্ধে ওঠা নতুন অভিযোগের মধ্যে রয়েছে ১৩ জন নারীর ওপর অন্তত ২০ বার ধর্ষণ এবং যৌন হামলা। গত ১৬ বছরে তারা রন জেরেমির দ্বারা যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছেন। 

আরও পড়ুন: একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে রেখেছিলেন অনন্য ভূমিকা, নড়াইলের জামাইয়ের জন্য বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় শোক আজ

৬৭ বছর বয়সী পর্ন তারকা জেরেমির বিরুদ্ধে এর আগে ২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে চারজন নারীকে ধর্ষণ ও হামলার অভিযোগ উঠেছিল। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছিল যে, তিনি ২৫ ও ৩০ বছর বয়সী দু'জন নারীকে ধর্ষণ করেছেন। এছাড়া আরও  দুজন নারীর ওপর হামলা করেছেন। সেই সময় এসব অভিযোগ নাকচ করে জেরেমির আইনজীবী বলেছিলেন যে, তার মক্কেল ‘চার হাজারের বেশি নারীর উপপতি’ এবং ‘নারীরাই তার প্রতি নিজেদেরকে বিলিয়ে দেয়।’

২০১৭ সালে রোলিং স্টোন নামে একটি ম্যাগাজিন একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে, যেখানে  জেরেমির বিরুদ্ধে অনেক নারী যৌন অসদাচরণের অভিযোগ আনেন। যার মধ্যে রয়েছে আপত্তিকর স্পর্শ, ডিজিটাল মাধ্যমে যৌন হয়রানি এবং যৌন হামলা। তবে ওই ম্যাগাজিনকে জেরেমি বলেছিলেন, ‘তিনি কখনোই কাউকে ধর্ষণ করেননি।’

আরও পড়ুন: ফের দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্ত ৭৮ হাজারের উপরে, মোট সংক্রমণ ৩৭ লক্ষ পার করল

পর্নোগ্রাফির জগতে রন জেরেমি খুব বড় একটি নাম। ১৯৭০ সাল থেকে দুই হাজারের বেশি পর্ন ভিডিওতে কাজ করেছেন রন জেরেমি। সবচেয়ে বেশি পর্নোগ্রাফিতে অভিনয় করার জন্য গিনেজ বুকের রেকর্ডেও তার নাম রয়েছে। ২০০১ সালে তাকে নিয়ে একটি তথ্যচিত্রও নির্মিত হয়।