কোভিড বিধি মেনেই মঙ্গলবার ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে। ভারতীয় রাজনীতিতে যেমন চাণক্য হিসাবে পরিচিত ছিলেন প্রণব তেমনি ওপার বাংলাতেও সমান জনপ্রিয় ছিলেন এই সাদামাটি বঙ্গ সন্তান। তাই ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আজ এক দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালিত হচ্ছে বাংলাদেশে।

রাষ্ট্রীয় শোক পালনের অংশ হিসেবে বুধবার বাংলাদেশের সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকল সরকারি ও বেসরকারি ভবন এবং বিদেশে বাংলাদেশের দূতাবাসগুলিতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছে। বাংলাদেশের  মন্ত্রিপরিষদ  মঙ্গলবার  এই সংক্রান্ত এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে। এছাড়া বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা করা হচ্ছে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের জন্য  বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন: ভারতীয় রাজনীতির এক বিশাল অধ্যায়ের পরিসমাপ্তি, পিপিই পরেই শেষকৃত্য সারলেন পুত্র অভিজিত

সোমবার প্রণব মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণের খবর পাওয়ার পরেই এক শোকবার্তায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে একজন রাজনীতিবিদ ও তাদের পরম সুহৃদ হিসেবে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অনন্য অবদান কখনও বিস্মৃত হওয়ার নয়। হাসিনা সবসময় মুক্তিযুদ্ধে প্রণববাবুর অসামান্য অবদান শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করার কথা জানিয়েছেন। শেখ হাসিনা বলেন, প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে ভারত হারালো একজন বিজ্ঞ ও দেশপ্রেমিক নেতাকে আর বাংলাদেশ হারালো একজন আপনজনকে। তিনি উপমহাদেশের রাজনীতিতে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র হয়ে বেঁচে থাকবেন। 

 

 

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে অনন্য ভূমিকা রাখা রাজনীতিক ও নড়াইলের জামাই প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে  বুধবার রাষ্ট্রীয় শোক পালন করছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ থেকে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়ে বলা হয়েছে, এদিন দেশের সব সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি ও বেসরকারি ভবন এবং বিদেশে বাংলাদেশের দূতাবাসে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হবে। অন্যদিকে ভারতে সোমবার থেকেই পালিত হচ্ছে সাত দিনের রাষ্ট্রীয় শোক; সাত দিনই জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে।

আরও পড়ুন: খাদ্যরসিক প্রণবদা ইলিশ বড় ভাল বাসতেন, বিদায় বেলায় স্মৃতিচারণায় ডুবলেন ইরানি

 মঙ্গলবার দিল্লির লোধি রোডের  শ্মশানে গান স্যালুটের মাধ্যমে, চোখের জলে শেষবিদায় জানানো হয় বাংলাদেশের এই অকৃত্রিম বন্ধুকে। শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ছুটে যান ভারতের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে দল-মত-নির্বিশেষে সর্বস্তরের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে শ্রদ্ধা জানান নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশন। প্রণব মুখোপাধ্যায়ের  অস্থিভস্ম বিসর্জন দেওয়া হবে হরিদ্বারে।