Asianet News Bangla

ক্লাস ফাইভের বাচ্চাদেরই দেওয়া হবে কন্ডোম, সরকারি স্কুলের নয়া নিয়ম ঘিরে তীব্র বিতর্ক


বিনামূল্যে ক্লাস ফাইভের বাচ্চাদের দেওয়া হবে ঋতুস্রাব সংক্রান্ত পণ্য এবং গর্ভনিরোধক পিল ও কন্ডোম। সরকারি স্কুলগুলি খুললেই শিক্ষার্থীদের জন্য অপেক্ষা করবে একটা বড়সড় চমক।

Free condoms to class 5 students, Chicago's decision sparks controversy ALB
Author
Kolkata, First Published Jul 14, 2021, 12:04 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোর সরকারি স্কুলগুলি এখনও বন্ধই রয়েছে। তবে সেপ্টেম্বর -অক্টোবরেই স্কুলগুলি খুলবে বলে আশা করা হচ্ছে। আর স্কুল খুললে শিক্ষার্থীদের জন্য অপেক্ষা করবে একটা বড়সড় চমক। স্কুলগুলিতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ফেস মাস্ক, স্যানিটাইজার দেওয়া ওয়াইপস, থার্মোমিটারের মতো জিনিসপত্র, যেগুলি কোভিড-১৯ মহামারির সময় অতি আবশ্যকীয় পণ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে, সেগুলি তো থাকবেই। তবে, সেইসঙ্গে থাকবে ঋতুস্রাব সংক্রান্ত পণ্য এবং গর্ভনিরোধক পিল ও কন্ডোম! বলাই বাহুল্য তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে এই নীতি।

শিকাগোর নতুন সরকারি স্কুলের নীতি অনুযায়ী, পঞ্চম শ্রেণী বা তার উপরের ক্লাসের শিক্ষার্থীদের যৌনতা সম্পর্কে সঠিক শিক্ষা দেওয়ার পাশাপাশি এইচআইভি এইডস-এর মতো গুরুতর অসুস্থতা থেকে বাঁচানোর লক্ষ্যে, স্কুলে স্কুলে একটি কন্ডোম প্রাপ্যতা অভিযান পরিচালনা করতে হবে। প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিতে থাকবে ২৫০ টি করে কন্ডোম, আর হাইস্কুলগুলিতে থাকবে ১০০০টি করে। এগুলি মিলবে বিনামূল্যে। অর্থাৎ, পঞ্চম শ্রেনী থেকেই শিক্ষার্থীরা হাতে পাবে কন্ডোম, তাও আবার স্কুলেই।

এই নয়া নীতি বেশ কয়েক বছরের আলোচনার পর তৈরি হয়েছে। আইন প্রণেতাদের দাবি, এটি একেবারে সঠিক পদক্ষেপ। ৩০ বছর ধরে শিকাগো সরকারি স্কুলের ডাক্তার হিসাবে কাজ করা শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ, কেনেথ ফক্সের মতে, 'তরুণদের সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সঠিক এবং সুস্পষ্ট তথ্য জানার অধিকার রয়েছে। তিনি আরও বলেছেন, শিক্ষার্থীরা যাতে 'খারাপ কাজ' না করে তার জন্য়ই গর্ভনিরোধক বিচরণ করা হবে। যদি শিক্ষার্থীদের এগুলির প্রয়োজন হয়, তবে তা সহজেই তারা হাতের কাছে পেয়ে যাবে।

তবে বিষয়টি এত সহজে নেয়নি নেটিজেনরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়া এসেছে দ্বিধা বিভক্ত হয়ে। মতো মতামত বিভক্ত হয়ে যায়। অনেকেই স্কুলে সেক্স এডুকেশনের সপক্ষে। কিন্তু, পঞ্চম শ্রেনীর ছাত্রছাত্রীরা ১০-১১ বছর বয়সী। তাদের কী শিক্ষা দেওয়া হবে, তাই ভেবে পাচ্ছেন না তাঁরা। অনেকে বলেছেন, এইসব সিদ্ধান্তের কারণে আরও বেশি করে পরিবারগুলি হোম স্কুলিং, অর্থাৎ বাড়িতে পড়াশোনা করানোর দিে ঝুঁকবে।

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios