ভারতের সাধারণ নির্বাচন ২০১৯-এ নরেন্দ্র মোদীর জয় সুনিশ্চিত হতেই টুইট করে তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু, সেখানেই শেষ নয়, মোদীর জয়ে খুশিতে উপচে পড়ছেন তিনি। নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা থামাতেই পারতছেন না। সুক্রবার তিনি বলেছেন, 'ভারতবাসীরা সৌভাগ্যবান' যে, নরেন্দ্র মোদীর মতো 'মহান মানুষ ও নেতা'-কে পেয়েছেন।  

এক টুইট পোস্টে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, শুক্রবার তাঁর সঙ্গে মোদীর টেলিফোনে কথা হয়েছে। নরেন্দ্র মোদীর এই বিশাল রাজনৈতির জয়ের জন্য ট্রাম্প তাঁকে আবারো অভিনন্দন জানিয়েছেন।  সাংবাদিক সামনে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে 'ঘনিষ্ঠ বন্ধু' বলে তুলে ধরেছেন। সেই সঙ্গে জানিয়েছেন, ভারতের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কুটনৈতিক সম্পর্কও অত্যন্ত ভালো।

শুধু মার্কিন প্রেসিডেন্টের কথাতেই নয়, নরেন্দ্র মোদী প্রশাসনের সঙ্গে মার্কিন প্রশাসনের সম্পর্কের রূপরেখা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে বৃস্পতিবারই। মোদীই আরও একবার ক্ষমতায় ফিরছেন, এটা বুঝতেই ট্রাম্পের পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইস প্রেসিট মাইক পেন্স, সেক্রেটারি অব স্টেট মাইক পম্পেও এমনকী মার্কিন প্রেসিডেন্টের কন্য়া তথা পরামর্শদাতা অভাঙ্কা ট্রাম্প অবধি টুইট করে নরেন্দ্র মোদীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। মোদীও সকলের টুইটের জবাব দিয়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট আলাদা করে এক বিবৃতি প্রকাশ করে ভারতের সাধারণ নির্বাচনকে মানবসভ্যতার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া হিসেবে তুলে ধরা হয়। সেই সঙ্গে বলা হয়, এই নির্বাচন সারা পৃথিবীতে গণতন্ত্রকামী মানুষের কাথছে অনুপ্রেরণা।