চাইনিজ শর্ট ভিডিও অ্যাপ টিকটককে আমেরিকায় নিষিদ্ধ করা হবে সেকথা আগেই ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে সেদেশের টিকটক কর্মীদের বাঁচাতে ময়দান নেমেছে বিখ্যাত সফটওয়ার কোম্পানি মাইক্রোসফট। টিকটক কিনে নিতে চাইছে মার্কিন টেক জায়ান্ট মাইক্রোসফট। এই বিষয়ে সংস্থআর সিইও সত্য নাদেল্লা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে কথাও বলেছেন বলে জানা যাচ্ছে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই টিকটক হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শেষ করতে চাইঠছে মার্কিন টেক জায়ান্ট।

 

 

শোনা যাচ্ছে আমেরিকার মালিকানাধিন থাকার জন্য রাজি হয়ে গেছে টিকটকের মালিক সংস্থা বাইটড্যান্স লিমিটেড। গত একমাস ধরে চলা দীর্ঘ আলোচনার পর টিকটকের পেটেন্ট কোম্পানি বাইটডান্স এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আরও পড়ুন: আমেরিকাতেও টিকটকের উপর নিষেধাজ্ঞার খাড়া, অধিগ্রহণ করতে চাইছে মাইক্রোসফট

এর আগে টিকটক জানিয়েছিল যে, তাঁরা আমেরিকায় নিষিদ্ধ হওয়ার থেকে রক্ষা পেতে কিছু অংশিদারিত্ব বিক্রি করতে পারে। কিন্তু এরজন্য আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প রাজি হচ্ছিলেন না। বরং তিনি টিকটককে আমেরিকার নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু সময় থাকতেই টিকটক আংশিক না, সম্পূর্ণ আমেরিকার মালিকাধিন হওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়ে যায়। মাইক্রোসফট আর টিকটকে মধ্যে এই চুক্তি পাঁচ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে।

ভারতের পর আমেরিকা বিশ্বে টিকটকের জন্য দ্বিতীয় বৃহত্তম বাজার। আমেরিকায় টিকটকের মাসিক অ্যাক্টিভ ব্যাবহারকারীদের সংখ্যা প্রায় আট কোটি। আর এই কারণে কোম্পানির এই সিদ্ধান্ত বড়সড় ক্ষতির হাত থেকে টিকটককে  বাঁচিয়ে দিলো। এর সাথে সাথে ভারতে টিকটকের আবারও ফেরত আসার আশা জাগল।

আরও পড়ুন: ডিজিট্যাল স্ট্রাইকের পর বেজিংকে আরো এক কষাঘাত, এই চিনা সামগ্রী আমদানিতে জারি হল নিষেধাজ্ঞা

টিকটকের  মাধ্যমে গোপনে তথ্য সংগ্রহ করছে চিন। এই অভিযোগে ভারত সরকার টিকটিক নিষিদ্ধ করেছে। সেই একই অভিযোগ উঠেছে মার্কিন মুলুকেও। রবিবারও সেই একই অভিযোগ করেছেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও।টিকটককে সেদেশএ নিষিদ্ধ করতে চাইছেন পম্পেও।  তবে চুক্তির আশা যে তারা ছাড়েনি তা রবিবার ফের জানিয়েছে মাইক্রোসফট। এই অবস্থায় টিকটকের মালাকানা বদল হয় কিনা তা জানতে আর কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।