আবারও প্রকাশ্যে এল এক যৌন নিপীড়নকারীর বর্বরোচিত কীর্তি। নারকীয় সেই কার্তির কথা ফাঁস হতেই মিলল শাস্তিও। কিন্তু তার জঘন্য অপরাধের কথা যত বলা হয়, ততই কম। কী করেছিল সেই অপরাধী?

ঘটনাটি ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। এক নাবালিকার ওপর একবার দু-বার নয়, একাধিকবার যৌন নিপীড়ন চালায় পেডোফিলিয়া আক্রান্ত এক যুবক। পুলিসি তদন্তে জানা গিয়েছে যে ওই যুবক এতটাই বিকৃত মনষ্ক যে, দিনের পর দিন এক নাবালিকাকে নারকীয়ভাবে ধর্ষণ করে গিয়েছে সে। বছর ২৯-এর ওই যুবকের নাম স্টিভেন ডগলাস ক্রুক জুনিয়র। তার পৈশাচিক আচরণের এখানেই শেষ নয়। জানা গিয়েছে ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করা সময়ে ওই যুবক নাকি সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভস্ট্রিমিংও চালিয়েছিলেন। আর তার মাধ্যমে সেই নারকীয় ভিডিও-র ফুটেজ সরাসরি তুলে ধরেছিল অগণিত জনতের সামনে।    

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একেবারেই নিরাপদ নয়, পর্যটকদের সতর্ক করল চিন

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তদন্ত শুরু করে মার্কিন পুলিশ। তদন্তে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ জানতে পারে, প্রায় একশো বার ওই ব্যক্তির বিকৃত কামের শিকার হয় ওই নাবালিকা। এরপর ২০০১৮ সালে ওই নাবালিকাকে উদ্ধার করে পুলিশ। জানা যায়, গত ছ'বছর ধরে ওই নাবালিকার ওপর যৌন নিগ্রহ চালায় ওই ব্যক্তি। সম্প্রতি মার্কিন বিচারসভায় ওই ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। তবে তার ক্ষেত্রে তার অপরাধের নিরিখে তাকে ১২০ বছরের জন্য কারাবাসের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।