রাশিয়ার তৈরি এস-৪০০ এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম বা বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার জন্য তোড়জোড় শুরু করেছে ভারত। আর এই চুক্তির জন্য কয়েক বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করার ব্লুপ্রিন্টও প্রায় তৈরি করেছে রেখেছে নতুন দিল্লি। কিন্তু ইতিমধ্যেই ভারত-রাশিয়ার প্রতিরক্ষার চুক্তির ওপর দীর্ঘশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সূত্রের খবর ভারত-রাশিয়া প্রতিরক্ষা চুক্তি নিয়ে ভারতের ওপর বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারে আমেরিকা। মার্কিন কংগ্রেসের একটি প্রতিবেদনে তেমনই হুশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। 

মার্কিন কংগ্রেসের একটি স্বতন্ত্র শাখা এবং দ্বিদলীয় গবেষণা শাখার নাম কংগ্রেসনাল রিসার্চ সার্ভিস বা সিআইএস। এই সংস্থাটি মার্কিন কংগ্রেসে তার দায়ের করা সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলেছে যে ভারত প্রযুক্তিগতভাবে এগিয়ে চলতে উদ্যোগী হয়েছে। বিদেশের সঙ্গে প্রযুক্তি ভাগ করার পাশাপাশি উৎপাদনেরও ব্যবস্থা করতে চাইছে। আর তা আটকে দিয়ে চাইছে আমেকিরা। রিপোর্টে বলা হয়েছে, রাশিয়ার তৈরি এস-৪০০ বিমান প্রতিরক্ষা সিস্টেম কেনার জন্য ভারত বহু বিলিয়ন ডলারের চুক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আইনের বিরোধী। আর সেই কারণে ভারতের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপান যেতে পারে। সিআরএস-এর প্রতিবেদনগুলিতে মার্কিন কংগ্রেসের আনুষ্ঠানিক প্রতিবেদন বা কংগ্রেসের দৃষ্টভঙ্গী প্রতিফলিত হয় না। মার্কিন কংগ্রেসের সদস্যদের সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করে এই সংস্থার রিপোর্ট। আর তাতেই আশঙ্কা করা হচ্ছে শেষ বেলায় ট্রাম্প প্রশাসন এই চুক্তিটি সামনে রেখে ভারতের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে যেতে পারে। 

মহামারি তাঁর দেশে পা রাখতে পারেনি, কিন্তু তারপরেও কেন করোনা টিকা জন্য হাত পাতছেন ...\

আইন বাতিল বনাম আইন প্রত্য়াহার, দুইয়ের মাঝে আটকে দিল্লির কৃষক আন্দোলন ...


কিন্তু এসবকিছু উপেক্ষা করে ২০১৮ সালেই রাশিয়ার থেকে এস-৪০০ বিমান প্রতিরক্ষা সিস্টেম কেনার জন্য ৫ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি করেছে ভারত। ২০১৯ সালে এই চুক্তির জন্য ভারত রাশিয়াকে ৪০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারও অগ্রিম দিয়েছে। এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম হল এখনও পর্যন্ত সবথেকে উন্নত দীর্ঘ পরিসরের মাটি থেকে বায়ুতে উৎক্ষেপণ হওয়া প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। মাস খানেক আগে রাশিয়া বলেছে নিষেধাজ্ঞার হুমকি উপেক্ষা করেই বিমান প্রতিরক্ষা সিস্টেন কেনার দিকে এগিয়েছে ভারত। প্রথম ব্যাচ সরবরাহের সঙ্গে সঙ্গেই এই চুক্তি বাস্তবায়নের দিকে এগিয়ে যাবে। গতমাসে নতুন দিল্লিতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ভারতে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আমেরিকার সমালোচনা করে বলেছেন তুরস্ক তাদের সঙ্গে এস-৪০০ কেনার চুক্তি করার পর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি হতে হয়েছে দেশটিকে। মস্কো এজাতীয় পদক্ষেপ মেনে নিতে নারাজ বলেও দাবি করেছিলেন তিনি। তিনি আরও বলেছিলেন জাতি সংঘের প্রয়োগ ব্যতীত অন্য কোনও নিষেধাজ্ঞ রাশিয়া মেনে নেবে না।