আমেরিকার মিসৌরির রাস্তায় একটা ছোট্ট কুকুর ছানাকে ঘুরতে দেখা যায়। কুকুরটিকে দেখতে প্রথমে একটু অদ্ভুত লাগে। ভালো করে দেখলে বোঝা যায় কুকুরটির কাপল থেকে ছোট্ট একটা লেজ বের হচ্ছে। এটা দেখার পরেই দশ সপ্তাহের এই কুকুর ছানাটিকে ম্যাকস মিশন নামের একটু পশুপ্রেমী সংস্থা তুলে নিয়ে যায়। সংস্থাটির কুকুর ছানাটির নাম দেয় নরহোয়াল। সোশ্যাল মিডিয়ায়  নরহোয়ালের ছবি প্রকাশ করার পর থেকেই, সাধারণ মানুষ তাকে দেখতে ভিড় জমাতে শুরু করেছেন। কেউ কেউ অবার সংস্থাটির কাছে কুকুরটির সঙ্গে খেলার আবদার করছেন। কেউ আবার  নরহোয়ালের সঙ্গে সেলফি তুলতেও চান। 

সংস্থাটির মালিক স্টিফেন জানিয়েছেন, নরহোয়ালের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়ে যায়। মানুষ তাকে দেখার জন্য এত ভিড় করছেন, যে তাদের সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। স্টিফেন মন্তব্য করেছেন, কুকুরটি এত মিষ্টি যে, দেখলেই তাকে আদর করতে ইচ্ছা করবে। তিনি মন্তব্য করেছেন, এখন লেজটি ছোট্ট আছে বলে, নরহোয়ালের কোনও সমস্যা হচ্ছে না। তবে লেজটি দিনে দিনে বড় হচ্ছে।  যার ফলে ভবিষ্যতে ওর সমস্যা আরও বাড়তে পারে।

 স্টিফেন মন্তব্য করেছেন, মঙ্গলবার নরহোয়ালকে পশু চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এক্সরে করে দেখা গিয়েছে, কপাল থেকে হওয়া ছোট্ট লেজে কোনও হাড় নেই। যার ফলে সহজেই অপারেশন করে নরওয়ালের কপাল থেকে লেজটা সরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে। অপারেশনের পর নরওয়ালের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা কোনও অসুবিধা হবে না বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন। 

ম্যাকস মিশন সংস্থার কর্ণধার স্টিফেন জানিয়েছেন, 'আমাদের কাছে পাঁচটা পায়ের কুকুর রয়েছে। তিনটি পায়ের প্রতিবন্ধী কুকুরকেও আমরা উদ্ধার করেছি। আমরা পায়ে প্লেট বসিয়ে কুকুরটিকে স্বাভাবিক জীবন দেওয়ার চেষ্টা করেছি।  কিন্তু কপালে লেজযুক্ত কুকুর আমরা এই প্রথমবার দেখছি। সবাই কুকুরটিকে দেখতে চাইছে।'