বছররের প্রথম দিনই সরগরম রাজ্য রাজনীতি। পয়লা জানুয়ারিতে জোড়া কর্মসূচি হেভিওয়েট বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর। একটি সোনাচুঁড়া ও  অপরটি কাঁথিতে। সকালে ইতিমধ্যেই নন্দীগ্রামের সোনাচুঁড়ায় সভা করেছেন শুভেন্দু। সেখানে সকলকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারী শীতের আমেজে নতুন বছরে বাড়িয়েছেন রাজনৈতিক উত্তাপও । ঘোষণা করে দিয়েছেন কাঁথির সবা থেকই তৃণমূলে যোগ দেবেন শুভেন্দু অধিকারীর ভাই সৌমেন্দু অধিকারী।

কাঁথি পুরসভার প্রশাসকের পদ থেকে সৌমেন্দুকে সরিয়ে দেওযার পর থেকেই চলছিল বিজেপি যোগদানের জল্পনা। অবশেষে নতুন বছরে অধিকারী পরিবারেও ফুটতে চলেছে পদ্ম। শুধু সৌমেন্দু অধিকারী নয়,সৌনাচুঁড়ার সবা থেকে শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন, কাঁথির মোট ১৬ জন কাউন্সিলরও যোগ দেবেন বিজেপিতে। একইসঙ্গে মোট ৫ হাজার তৃণমূল কর্মীও বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে জানিয়ে শুভেন্দু। ফলে নতুন বছরের প্রথম দিন থেকেই শাসক দলের উপর চাপ সৃষ্টি করতে বদ্ধপরিকর অধিকারী পরিবার।

প্রসঙ্গত, মেদিনীপুরে অমিত সাহের সভাতে বিজেপিতে যোগদানের পরই শাসক দলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্য জুড়ে পদ্ম ফোটানোর ডাক দিয়েছিলেন।  নাম না করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছিলেন শুভেন্দু। পালটা ডায়মন্ড হারবারের সভা থেকে আক্রমণ শানিয়েছিলেন অভিষেকও। নিজের পরিবারে পদ্ম ফোটাতে পারেন না, রাজ্য পদ্ম ফোটাবেন কি করে সেই প্রশ্ন তুলেছিলেন ডায়মন্ডহারবারের তৃণমূল সাংসদ। পয়লা জানুয়ারী সৌমেন্দু বিজেপিতে যোগ দান অভিষেককে শুভেন্দুর জবাব বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।