ফেক নিউজ আজ সমাজের কাছে অন্যতম বড় বিপদ। সোশ্যাল মিডিয়া এবং অনলাইন মিডিয়ার বাড়বাড়ন্তে যে কোনও তথ্য শেয়ার করাটা এখন অতি সহজ। কিন্তু, সমস্যা তৈরি হচ্ছে যখন কোনওভাবে সেই তথ্যের সত্যতা যাচাই না করেই তা শেয়ার করা হচ্ছে তখন, কারণ অসংখ্য ভুল তথ্য এভাবেই সমাজের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে। এর ফলে সমাাজের মধ্যে নানা ধরনের প্রভাব পড়ছে। তথ্যের সত্যতা বোঝার আগেই তাকে ঘিরে তৈরি হচ্ছে উন্মাদনা। এর প্রভাব পড়ছে সমাজের সবস্তরে।  

কেউ ফেক নিউজ এভাবে প্রচার করছে নিজের ব্যক্তিগত স্বার্থের ফায়দা তুলতে। কেউ আবার কাউকে নিচু দেখানোর জন্য বা সম্মানহানির জন্যও মিথ্যা খবরের প্রচার করছে। ফেক নিউজের করাল গ্রাস শুধু এখানেই থেমে নেই, রাজনীতি থেকে শুরু করে কর্পোরেট ওয়ার্ল্ড এবং ব্যবসার ক্ষেত্রেও এখন রমরমা ফেক নিউজের। 

ভিডিও থেকে শুরু করে ছবি, গ্রাফিক্যাল ক্রিয়েটিভস, প্রিন্টের মতো করে লেখা খবর- সবেতেই থাবা বসাচ্ছে ফেক নিউজ। গত এক দশকে বিশ্বজুড়ে এই ফেক নিউজের শিকার হয়েছে কয়েক কোটি মানুষ। এমনকী ফেক নিউজের দৌলতে এক সাধারণ নাগরিককে বিশ্বের কুখ্যাত জঙ্গির তকমাও দিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এই ফেক নিউজের তথ্য যাচাই না করেই সেই অভিযুক্ত যুবকের বিরুদ্ধে কার্যত সাজা ঘোষণা করে দিয়েছিল বিভিন্ন রাষ্ট্রের আদালত। আজও সেই যুবক জঙ্গি তকমার বিরুদ্ধে আইনি লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। 

এহেন এক পরিস্থিতিতে বিশাল রকমের ভূমিকা রয়েছে সংবাদমাধ্যগুলির। ২৫ বছরের এক ঐতিহ্যশালী এক ইতিহাসের সঙ্গে যুক্ত থাকা এশিয়ানটে নিউজ সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে ফেক নিউজের বিরুদ্ধে। এখানে প্রতিটি খবরকে পুঙ্খনাপুঙ্খভাবে যাচাই করার পরই তা পাঠকদের সামনে নিয়ে আসা হয়। এশিয়ানেট নিউজের বিশাল টিম যে কোনও মূল্যে সত্য খবর প্রকাশের জন্য নিজেদের সেরাটা নিংরে দেয়।  

এশিয়ানেট নিউজ বাংলা যা এশিয়ানেট নিউজ নেটওয়ার্কের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, আজ তারাও ফেক নিউজের বিরুদ্ধে নিয়ত লড়াই করছে। এখানে প্রতিটি খবরকে চেক এবং রিচেকের মাধ্যমে সত্যতা খতিয়ে দেখা হয়। আর তারপরই তা প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ব্রেকিং-নিউজের ক্ষেত্রে এই নীতি অনুসরণ করা না গেলেও চেষ্টা চলে দ্রুত খবরের সত্যতা যাচাই-এর। 

এছাড়াও ফেক নিউডের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এশিয়ানেট নিউজ বাংলা তৈরি করেছে ফ্যাক্ট-চেক নামে ক্যাটিগরি। যেখানে ফ্যাক্ট চেক নিয়ে একাধিক খবরের সন্ধান মেলে। ফ্যাক্ট চেক ক্যাটিগরির অধীনে এশিয়ানেট নিউজ বাংলা খবরের প্রতিটি অংশ-কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়। নিম্নলিখিত ক্রমান্বয়ে ফ্যাক্ট-চেক-কে পরিপূর্ণতা দেওয়া হয়-- 

১। যে খবরটি-র ফ্যাক্ট চেক করা হয়- তার একটি সংক্ষিপ্তসার প্রথম প্যারাগ্রাফে দেওয়া হয়। 
২। এবার আসে ফ্যাক্ট চেক-এর মূল বিষয়, এখানে প্রকাশিত খবরের সঙ্গে আসল খবরের কোথায় কোথায় অমিল এবং মিল রয়েছে তা তুলে ধরা হয়। এতে তথ্যের গরমিলটাকেও হাইলাইটসে নিয়ে আসা হয়। 
৩। তৃতীয় ধাপে দেওয়া হয় কোথায় কীভাবে খবরটি প্রকাশ পেয়েছে- এখানে ওয়েবসাইট থেকে শুরু করে গুগল এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পাওয়া খবরকে তুলে ধরা হয়। 
৪। এরপর চতুর্থধাপে দেওয়া হয় উপসংহার বা কনক্লুশন। 
যদিও, খবরের তথ্য যাচাই এবং তাতে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অনেক সময় ফ্যাক্ট-চেক-এর ধাপেও বৃদ্ধি ঘটানো হয়ে থাকে। তাই, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে নির্ভুল খবর পেতে হলে অবশ্যই ক্লিক করুন এশিয়ানেট নিউজ বাংলা।