নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে তৃণমূল কংগ্রেসকে চড়া সুরে আক্রমণ করলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন যাঁরা নন্দীগ্রামে ভারত পাকিস্তানের কথা বলছেন তাঁদের উপযুক্ত জবাব দেবেন নন্দীগ্রামের মানুষ। তিনি আরও বলেন দোশরা মে ভোটের ফল প্রকাশের পর আর এলাকা শুভেন্দু অধিকারী মুখ দেখাতে পারবেন না বলেও মন্তব্য করেন অভিষেক। রীতিমত কটাক্ষের সুরেই তিনি বলেন, বিশ্বাসঘাতকদের পায়ের তলার মাটি সরে গেছে। ১ তারিখে লড়াইয়ের ময়দানে দেখা হবে আর ২ তারিখে বিশ্বাসঘাতকদের বিসর্জন হবে বলেও মন্তব্য করেন অভিষেক। 

গ্রামের মেঠো সুরেই ভোট প্রচারে জোর, মুর্শিদাবাদে তৃণমূল প্রার্থীর জন্য গান বাঁধছেন কবিয়ালরা ...

'প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারকে আগে সম্মান করতাম কিন্তু...', বিষ্ণুপুরের সভা থেকে মোদীকে তোপ মমতার ...

প্রসঙ্গত উল্লেখ নন্দীগ্রামে পয়লা এপ্রিল নির্বাচন। ২ মে ভোটের ফল প্রকাশ হবে। নন্দীগ্রাম কেন্দ্রটি এই রাজ্যের ব্যাটেলগ্রাউন্ডে পরিণত হয়েছে। এই কেন্দ্র থেকে ভোট যুদ্ধে সামিল হয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়েক পিসি তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু। 

এদিন নির্বাচনী প্রচারে পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুরেও গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি তিনি বিজেপির নির্বাচনী ইস্তাহারের একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি নিয়ে কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন,বিজেপি বলেছে রাজ্যে ক্ষমতায় এলে বিজেপি মহিলাদের জন্য বিনামূল্য পরিবহনের ব্যবস্থা করে দেবে।তারপরই তিনি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন রেল কেন্দ্রের হাতে। তাতে রাজ্যের কোনও ভূমিকা নেই । আগে মহিলাদের জন্য রেল সফর ফ্রি করে দেখাক বিজেপি। বিজেপি বাংলার মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ করেন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ। এই কেন্দ্রে প্রথম দফায় অর্থাৎ আগামী ২৭ মার্চ ভোট গ্রহণ হবে। নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী আগামিকালই শেষ হবে নির্বাচনী প্রচার। নন্দীগ্রাম ও ভগবানপুরের নির্বাচনী প্রচারে কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, যুবশ্রীর মত রাজ্যের উন্নয়নমূলক প্রকল্পের কথাও তুলে ধরেন তৃণমূল নেতা।