বাংলা, অসম, কেরল, তামিলনাড়ু আর পদুচেরিতে খুবই দ্রুতগতিতে এগিয়ে আসছে নির্বাচনের দিন। যার মধ্যে বাংলা দখলের লক্ষ্যে রীতিমত তৎপর বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। অন্যদিকে বাম শাসিত কেরলে ভালো ফল করার একটা চ্যালেঞ্জ বিজেপির কাছে। অসমে ক্ষমতা ধরে রাখার পাশাপাশি পদুচেরিতে কংগ্রেস হারিয়ে ক্ষমতা দখল করতে মরিয়া বিজেপি। তামিলনাড়ুতে আঞ্চলিক দলের সঙ্গে ইতিমধ্যেই জোট বদ্ধ হয়ে লড়াই করার পথে হাঁটছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এই অবস্থায় রবিবার দিল্লিতে একদিনের নির্বাচনী কৌশল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে বেজেপীর প্রধান দলীয় কার্যালয়। এদিন সেই বৈঠকেই অংশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এই বৈঠকে বিজেপি জেপি নাড্ডা অমিত শাহ-র মত শীর্ষ নেতৃত্বই উপস্থিত রয়েছেন। 


বিজেপি সূত্রে খবর এই বৈঠকে অংশ নিয়েছেন প্রায় ১৫০  প্রতিনিধি। যার মাধ্যে থাকছে প্রতিটি রাজ্যের ইউনিট প্রধানও।  কোন রাজ্যে কী ভাবে লড়াই করা হবে- তাই নিয়েই আলোচনা করা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিজেপি নেতা জানিয়েছেন,প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব প্রাপ্ত দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। প্রতিটি রাজ্যের বিষয়ে আলাদা আলাদা করে খোঁজ খবর নিয়েছেন। পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের পাশাপাশি দিল্লির উপকণ্ঠে চলা কৃষক আন্দোলন ও আত্মনির্ভর ভারত গঠনের পরিকল্পনা নিয়েও এদিনের বৈঠকে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। 

আরও একবার করোনিল নিয়ে আসরে রামদেব, বললেন 'প্রথম প্রমাণ ভিত্তিক করোনর ওষুধ' ...

স্বাতী মোহনের একটি ছোট্ট টিপ আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু, নেটদুনিয়া তোলপাড় নাসার বিজ্ঞানীকে নিয়ে ...
আগামী ২ সপ্তাহ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভোটমুখী পাঁচ রাজ্যে ভ্রমণ করবেন। নির্বাচনী প্রচার মিছিল ছাড়াও একাধিক কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। সঙ্গে রয়েছে সরকারি কর্মসূচিও। সূত্রের খবর জাতীয় নির্বাচন কমিশন আগামী মাসের প্রথম দিকেই পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের দিন ঘোষণা করবে। সেই অনুযায়ী বিজেপির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী সফরের পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলেও সূত্রের খবর। তবে ইতিমধ্যে বাংলা, অসম ও তামিলনাড়ু সফর করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে বেশ কয়েকটি উন্নয়নমূলক সরকারি প্রকল্পেরও উদ্বোধন করেছেন তিনি।