মেদিনীপুর কলেজ মাঠের সভা থেকে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের ডঙ্কা বাজিয়ে দিলেন অমিত শাহ। শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগ দানের পাশাপাশি এদিন পদ্ম শিবিরে নাম লেখালেন ৯ জন বিধায়ক। যার মধ্যে ৬ জনই তৃণমূল কংগ্রেসের। রয়েছেন সাংসদ সুনীল মণ্ডলও।  এছাড়া একঝাঁক শাসক দলের নেতা-কর্মী, প্রাক্তন মন্ত্রী, বিধায়ক, সাংসদও যোগ দিলেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে। সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন অমিত শাহ।

মেদিনীপুরের সভা থেকে যে একগুচ্ছ নেতা-কর্মীর দলবদল হতে চলেছে তা আগেই জানা গিয়েছিল। তাই বশ কয়েকদিন ধরেই এই সভাকে কটাক্ষ করছিলেন শাসক দল। এদিনের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কার্যত হুঁশিয়ারী দিয়ে অমিত শাহ বলেন,'আপনি এখন দল বদলের সমালোচনা করছেন, আপনার আসল দল কোনটি, কোন দল থেকে বেরিয়ে আপনি আপনি টিএমসি গঠন করেছিলেন। এটা তো সবে শুরু। আমি যা দেখতে পাচ্ছিআগামি দিনে বাংলায় সুনামি আসতে চলেছে। আর বিধানসভা নির্বাচন আসতে আসতে আপনি শুধু একাই থাকবেন। আগামি দিনে কি হতে চলেছে আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।'

তৃণমূলের অন্দরে এই ধসের কারণও মেদিনীপুরের সভা থেকে বলেছেন অমিত শাহ। এই প্রসঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছেন অমিত শাহ। তিনি বলেছেন,' যারা দল বদল করছে তারাও একসময় মা-মাটি মানুষের স্লোগান দিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমানে তৃণমূল সরকার মা-মাটি-মানুষকে ভুলে তোলাবাজ, হিংসা, স্বজনপোষন আর ভাইপোবাজে পরিণত করে দিয়েছে।' ভাইপোকে মুখ্যমন্ত্রীর করার জন্য ১০ কোটি মানুষের ভবিষ্যৎ আপনি নষ্ট করছেন বলেও, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন অমিত শাহ। একইসঙ্গে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে অমিত শাহ জানিয়ে দিয়েছেন, আগামি বিধানসভা নির্বাচনে ২০০-র বেশি আসন নিয়ে বাংলায় ক্ষমতায় আসতে চলেছে বিজেপি সরকার। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, শুভেন্দুর বিজেপি যোগের সঙ্গে সঙ্গে বাংলায় বেজে গেল নির্বাচনের দামামা।