শুক্রবারই, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের জন্য ২৯১ আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছেন। সিঙ্গুর আসনে পরপর চারবার তৃণমূলের টিকিটে জয়ী বিধায়ক 'মাস্টারমশাই' রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যকে বাদ দিয়ে এই আসনে এইবার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী করেছে সিঙ্গুর আন্দোলনের অন্যতম নেতা বেচারাম মান্নাকে। অথচ, এই বেচারামই নাকি ৩দিন আগে কংগ্রেসের প্রার্থী হতে চেয়ে ফোন করেছিলেন, শনিবার এমনটাই দাবি করলেন অধীর চৌধুরী।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি এদিন অভিযোগ করেন, তিন দিন আগে তাঁকে ফোন করেছিলেন বেচারাম মান্না। বেচারাম কংগ্রেসের টিকিট চেয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন অধীর। সিঙ্গুর থেকেই কংগ্রেস প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু, অধীর জানান, সিঙ্গুর কেন্দ্রে প্রার্থী দেবে বামেরা। তাই সিঙ্গুর থেকে মোর্তার প্রার্থী হতে চাইলে তাঁকে বামেদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। সেই সময় বেচারাম হুগলীর যে কোনও আসন থেকেই কংগ্রেস প্রার্থী হতে চান বলে জানিয়েছিলেন।

অধীর দাাবি করেন, টিকিট না পেলেই বেচারাম তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়তেন। এমন লোকদের নিয়েই তৃণমূল কংগ্রেস গঠিত, বলে ঘাসফুল শিবির-কে কটাক্ষ করেন তিনি। এইবার শুধু বেচারামকে সিঙ্গুর থেকেই দাঁড় করায়নি তৃণমূল, হরিপাল কেন্দ্র থেকে দাঁড় করানো হয়েছে বেচারামের স্ত্রী করবী মান্নাকে।

যদিও, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন বেচারাম মান্না। অধীররঞ্জন চৌধুরীকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে তিনি বলেন, অধীর 'চরিত্রহীন, লম্পট এবং মিথ্যাবাদী'। সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা বলছেন অধীর বলে দাবি করেন তিনি। এমন একজন মিথ্যাবাগী নেতাকে জাতীয় কংগ্রেস থেকে বের করে দেওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন সিঙ্গুরের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী।